খেলাধুলা

বিরাটের ব্যবহারে বিরক্ত দলের সিনিয়ররা

2021/09/29/_post_thumb-2021_09_29_11_07_31.jpg

বিরাট কোহলি ভারতের টি২০ দলের অধিনায়কত্ব ছাড়ার ঘোষণার আগে থেকেই তীব্র জল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছিল। আদৌ সীমিত ওভারে তিনি অধিনায়ক থাকবেন কিনা, তা নিয়ে তর্ক বিতর্কও চলছিল। শেষ পর্যন্ত বিরাট কোহলি নিজে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর এই ফর্ম্যাটের অধিনায়কত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করলে, জল্পনায় ইতি পড়ে।

কোহলি জানিয়েছিলেন, ব্যাটিং-এ মন দেয়ার জন্য কিছুটা বোঝা কমাতেই নাকি তিনি টি-টোয়েন্টির নেতৃত্ব ছেড়ে দিচ্ছেন। এমনটা ভারত অধিনায়ক দাবি করলেও এই মুহূর্তে অন্য গল্পও শোনা যাচ্ছে।

আসলে ইংল্যান্ড সফরের পর থেকেই কোহলির অধিনায়কত্ব নিয়ে জল্পনাটা তীব্র আকার নিয়েছিল। শোনাও যাচ্ছিল, বিরাটকে সাদা বলের অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হবে। এর পিছনে অবশ্যই একটি কারণ কাজ করেছিল। বিসিসিআই-এর একটি সূত্র মারফৎ চাঞ্চল্যকর একটি তথ্য জানা গেছে। সিনিয়র ক্রিকেটাররা নাকি কোহলির ব্যবহারে ভয়াবহ মাত্রায় বিরক্ত। তারাই বিসিসিআই-এর কাছে কোহলির বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়েছেন।

বিরাট কোহলির নিজের ব্যর্থতাও, সতীর্থদের সাথে তার ব্যবহার পরিবর্তনের বড় কারণ। নিজে ভুল সিদ্ধান্ত নিতেন, তার পর সতীর্থদের সাথে সেই নিয়ে খারাপ ব্যবহার করতেন বলে জানা গিয়েছে। একজন সিনিয়র প্লেয়ার বিসিসিআই সচিব জয় শাহের কাছে অভিযোগ জানিয়েছিলেন, কোহলির কারণে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে সিনিয়র ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন কোহলি। খারাপ ভাবে কথা বলতেন। তাদের ঘাড়েই নাকি সব দোষ চাপানোর চেষ্টা করেছিলেন।

রবিচন্দ্রন অশ্বিনের সাথে কোহলির মনোমালিন্যের কথা কারও অজানা নয়। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পুরো টেস্ট সিরিজে অশ্বিনকে একটি ম্যাচেও খেলাননি কোহলি। এমনকি হেড কোচ রবি শাস্ত্রীও চতুর্থ টেস্টে অশ্বিনকে খেলাতে বলেছিলেন, পাত্তা দেননি বিরাট।

বিরাটকে নিয়ে সিনিয়র ক্রিকেটারদের অসন্তোষের মাঝেই কোহলির সাথে পরামর্শ না করে, মহেন্দ্র সিং ধোনিকে মেন্টর নিযুক্ত করেছে বিসিসিআই। পাশাপাশি অশ্বিনকে দলে নিয়েছে তারা। অশ্বিনের বদলে যুজবেন্দ্র চাহালকে চেয়েছিলেন কোহলি। কিন্তু তাতে বিসিসিআই রাজি হয়নি।

এই সব নানা কারণেই বিরাট নিজের জায়গাটা হারাতে পারেন বলে বুঝে গিয়েছিলেন। বিসিসিআই সরাসরি তাকে না সরালেও, পরোক্ষে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন, টি-টোয়েন্টিতে তার মেয়াদ বেশি দিনের নয়। সে কারণেই সম্ভবত আগে ভাগে নিজেই সরে দাঁড়ান কোহলি।

এবার কোহলির বিরুদ্ধে বিদ্রোহ কোচের

আইপিএলের পর আমিরাতেই বসতে চলেছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। তাতে বিস্তর সময় অবশেষ থাকলেও আইসিসির নির্দেশ অনুসারে ইতিমধ্যেই ভারতীয় দল ঘোষণা করা হয়ে গিয়েছে। বিশ্বকাপের ১৫ জনের দলে বেশ কয়েকটি চমকপ্রদ নির্বাচন করেছেন ভারতীয় নির্বাচকরা। শিখর ধাওয়ান, যুজবেন্দ্র চাহাল, শ্রেয়স আইয়াররা দলে না থাকায় ঙ্রু কুঁচকেছএন অনেকেই। এবার সেই তালিকায় বিরাট কোহলির কোচও। '

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তারকা মিডল অর্ডার ব্যাটার শ্রেয়স আইয়ারকে দলে না রাখার সিদ্ধান্তকে ‘অন্যায্য’ বলে দাবি করেন বিরাট কোহলির ছোটবেলার কোচ রাজকুমার শর্মা। দীর্ঘ চোট ও অস্ত্রোপ্রচারের পর আইপিএলে মাঠে নেমে দুরন্ত ছন্দে দেখিয়েছে শ্রয়সকে। দিল্লি ক্যাপিটালসের হয়ে নিজের এ মরশুমের প্রথম দুই ম্যাচে ইতিমধ্যেই ৯০ রান করে ফেলেছেন ভারতীয় তারকা। চোটের পর শ্রেয়সকে দল থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারছেন না রাজকুমার।

Kheelneeti পডকাস্টে তিনি জানান, ‘শ্রেয়স আইয়ারের দলে (ভারতের বিশ্বকাপ দলে) না থাকাটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। ও চোটের আগে ভারতীয় দলের একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিল। চোটের পর এমনভাবে ওকে দল থেকে বাদ দেয়া অন্যায়। আমার মনে হয় ওর শুরুতেই দলে থাকা উচিত ছিল। যদি শেষমেশ ও সুযোগ পায়, তাহলে সেটাই যোগ্য হবে।’

শ্রেয়স ১৫ জনের দলে না থাকলেও দলের রিজার্ভে রয়েছেন। ১০ অক্টোবর পর্যন্ত দলে পরিবর্তনও করা যাবে। শ্রেয়েস দলে ফেরেন কি না, এবার সেটাই দেখার।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

মন্তব্য