জাতীয়

২০১৭ সালে লাইসেন্স বাতিল হয়েছিলো আইকন প্লাস কোচিং সেন্টারের

2021/11/03/_post_thumb-2021_11_03_15_30_03.jpg

সম্প্রতি কোচিং না করিয়েও স্বীকৃতি পেতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদভুক্ত খ ইউনিটের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম হওয়া মো. জাকারিয়াকে মারধর করেছে আইকন প্লাস নামে এক কোচিং সেন্টারের শিক্ষকরা। শুধু জাকারিয়া নয় এরকম মেধাবী শিক্ষার্থীদের নিয়ে তারা শিক্ষার নামে ব্যবসা করেই চলছে।

শুধু তাই নয় তাদের কোচিং সেন্টারও অবৈধতার অভিযোগ ২০১৭ সালে তাদের কোচিং সেন্টারের লাইসেন্সও বাতিল করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)।

জানা যায়, অবৈধ ব্যানার-বিলবোর্ড সাঁটানোর দায়ে ২০১৭ সালে ছয় কোচিং সেন্টারের ট্রেড লাইসেন্স বাতিল করে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। এগুলোর প্রত্যেকটির অবস্থান রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায়। তারমধ্যে অন্যতম আইকোন প্লাস।

তৎকালীন সময় ডিএনসিসির প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা রবীন্দ্রশ্রী বড়ূয়া এ প্রসঙ্গে সমকালে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, যে ব্যবসা করে তারা চলছিল সেটার ট্রেড লাইসেন্স বাতিলই তাদের জন্য সবচেয়ে বড় শাস্তি। এর ফলে এখন ওই কোচিং সেন্টারগুলো আর কোচিং ব্যবসা করতে পারবে না।

তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে কোচিং সেন্টারগুলোর কর্তৃপক্ষের সাথে ডিএনসিসির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের অতীতে বৈঠক হয়। তাদেরকে অনুরোধ করা হয়েছিল ওইসব অবৈধ ব্যানার-ফেস্টুন নিজ উদ্যোগে সরিয়ে নেওয়ার। কিছু কোচিং সেন্টার নিজ উদ্যোগে সরিয়ে নিলেও কিছু কোচিং সেন্টার সেগুলো অপসারণ করেনি। যারা করেনি তাদের ট্রেড লাইসেন্স বাতিল করা হয়।

ডিএনসিসি জানায়, দেয়াল লিখন ও পোস্টার নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১২ ও দি সিটি কর্পোরেশন (ট্যাপেশন) রুলস ১৯৮৬ অনুযায়ী কোচিং সেন্টারগুলোর ট্রেড লাইসেন্স বাতিল করা হয়।

দেখা গেছে, ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের নীতিমালা অমান্য করে অবৈধভাবে প্রতিষ্ঠান চালিয়ে যাচ্ছে তারা। ‍

উল্লেখ্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদভুক্ত খ ইউনিটের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম হওয়া মো. জাকারিয়াকে নিজেদের ছাত্র দাবি করে জোর করে নিয়ে যেতে চেয়েছিল আইকন প্লাস নামের একটি ভর্তি কোচিং সেন্টার। তাতে রাজি না হওয়ায় ওই কোচিং সেন্টারের লোকজন তাকে মারধরও করে।

মন্তব্য