প্রচ্ছদ

৪ জেলায় করোনা সংক্রমণের হার শূন্য

2021/11/03/_post_thumb-2021_11_03_15_48_22.jpg

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ অনেকটাই কমে এসেছে। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে ইতিমধ্যে দেশের চারটি জেলায় করোনা সংক্রমণের হার শূন্যের কোটায় চলে এসেছে। 

বুধবার (৩ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা বিষয়ক ওয়েবসাইটে হালনাগাদ করা তথ্যে বিষয়টি জানানো হয়েছে। শূন্যের কোটায় আসা জেলাগুলো হলো- লালমনিরহাট, নেত্রকোনা, সাতক্ষীরা ও বরগুনা।

হালনাগাদ তথ্যে বলা হয়েছে, গত ২৫ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ৭ দিনের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে, লালমনিরহাট, নেত্রকোনা, সাতক্ষীরা ও বরগুনায় করোনা সংক্রমণের হার শূন্যে নেমে এসেছে।

এর মধ্যে সাতক্ষীরা জেলায় গত সাত দিনে টেস্ট পজিটিভিটি শূন্য শতাংশ। টেস্ট হয়েছে ৪৫৫টি, তার মধ্যে একজনেরও করোনা পজিটিভ হয়নি। যেখানে এর আগের সপ্তাহে (১৮-২৪ অক্টোবর) টেস্ট পজিটিভিটির হার ছিল ০.৫৭ শতাংশ। ৩৪৯টি পরীক্ষায় মাত্র দুই জনের করোনা শনাক্ত হয়।

বরগুনা জেলায় গত সাত দিনে টেস্ট পজিটিভিটি শূন্য শতাংশ। জেলায় ২৫ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত ৩৩৯টি নমুনা পরীক্ষায় কারও করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়নি। এর আগের সপ্তাহে জেলাটিতে টেস্ট পজিটিভিটির হার ছিল ০.৬৯ শতাংশ। ২৮৮টি করোনা পরীক্ষায় মাত্র দুই জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

এদিকে, লালমনিরহাটে ২৫ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর সময়ে ১৩১টি নমুনা পরীক্ষায় কারো করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়নি। জেলাটিতে টেস্ট পজিটিভিটিও শূন্য শতাংশ। এর আগের সপ্তাহে জেলাটিতে টেস্ট পজিটিভিটির হার ছিল ০.৭৩ শতাংশ। ১৩৭টি পরীক্ষায় এক জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

আর নেত্রকোনা জেলায় ২৫ অক্টোবর থেকে ৩১ অক্টোবর সময়ে ৪৪৬টি নমুনা পরীক্ষায়ও কারো শরীরে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়নি। জেলাটিতে টেস্ট পজিটিভিটিও শূন্য শতাংশ। এর আগের সপ্তাহে জেলাটিতে টেস্ট পজিটিভিটির হার ছিল ০.৭২ শতাংশ। ৪১৫টি পরীক্ষায় মাত্র তিন জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

অধিদফতরের তথ্যমতে, গত সাত দিনে সারা দেশে এক লাখ সাত হাজার ৫৭৭টি করোনার নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল, যেখানে এক হাজার ৪১৯ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। আর এই সময়ে সর্বমোট মৃত্যু হয় ৩২ জনের।

এদিকে, মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) জানানো হয়, আগের ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭ হাজার ৮৭৩ জনে।

একই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২২৯ জনের। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৬৯ হাজার ৯৮২ জনে।

মন্তব্য