প্রচ্ছদ

মুদি ব্যবসায়ীর গোডাউনে ১৮ হাজার লিটার তেল

2022/05/10/_post_thumb-2022_05_10_18_28_09.jpg

ঈশ্বরদীতে এক মুদি ব্যবসায়ীর গোডাউন থেকে ১৮ হাজার লিটার ভোজ্যতেল উদ্ধার করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত। তবে এত বিপুল পরিমাণ তেলের মজুদ ধরার পরও আদালত মাত্র ২০ হাজার টাকা জরিমানা করায় বিস্ময় দেখা দিয়েছে উপস্থিত ক্রেতা ও সাধারণ মানুষের মধ্যে।

মঙ্গলবার দুপুরে ঈশ্বরদী বাজারের শ্যামল স্টোরের গোডাউনে অভিযান চালিয়ে ১০ হাজার লিটার খোলা ভোজ্য সয়াবিন তেল, ১২৪৪ লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল ও ৭ হাজার লিটার সরিষার মজুদ করা তেল উদ্ধার করে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

ঈদের আগে এসব ভোজ্যতেল সংগ্রহ করে নিজের গুদামে অবৈধভাবে মজুত করেছিলেন শ্যামল স্টোরের মালিক শ্যামল দত্ত পাল।

মঙ্গলবার (১০ মে) বেলা ১১টায় শহরের নূরমহল্লা মাতৃমন্দিরের সামনে শ্যামল পালের গোডাউনে অভিযান পরিচালনা করেন পাবনা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক জহিুরুল ইসলাম। এ সময় তিনি ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও মজুদকৃত ভোজ্যতেল জনসম্মুখে ঈদের পূর্বের দামে ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করার নির্দেশ দেন।

অভিযানে প্রসিকিউটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ঈশ্বরদীর নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক সানোয়ার রহমান। এ সময় ঈশ্বরদীর আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

তবে বিপুল পরিমাণ ভোজ্যতেল আটকের পর মাত্র ২০ হাজার টাকা জরিমানা করায় উপস্থিত ক্রেতা ও সাধারণ মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

এ বিষয়ে ঈশ্বরদী শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম বাচ্চু বলেন, কোনো ব্যবসায়ী যদি কোনো অনৈতিক কাজ করে তাহলে তাকে সাজা পেতে হবে। তিনি বলেন, আমরা মাঝে মধ্যেই মাইকিং করে সতর্ক করি যাতে কোনো অবস্থাতেই ভোক্তাসাধারণ ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।

বাচ্চু জানান, ঈশ্বরদী শিল্প ও বণিক সমিতি সবসময় এ বিষয়ে সোচ্চার। যে কেউ ব্যবসার নামে মানুষের ক্ষতি করবে তাকে ছাড় দেয়া হবে না। এ ধরনের অভিযানে আমরা সবসময় সহযোগিতা করে যাবো।

একধিক ক্রেতারা জানান, শ্যামল পালের গোডাউন মালামাল জব্দ ও সিলগালা করা উচিত ছিল। শ্যামল পালের মতো আরো যেসব তেলসহ অন্যান্য পণ্যের মজুতদার অসাধু ব্যবসায়ী রয়েছে তাদের বিরুদ্ধেও অভিযান পরিচালনার দাবি জানান।

মন্তব্য