প্রচ্ছদ

এবার জামায়াত নেতা শামসুল ইসলামকেও গ্রেফতার করলো সরকার

2021/09/09/_post_thumb-2021_09_09_14_50_31.jpg

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির এবং শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের সভাপতি আ ন ম শামসুল ইসলামকে আটক করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার রাজধানীর উত্তরার একটি বাসা থেকে তাকে আটক করা হয়। আজ সকালে তাকে ডিবি কার্যালয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির, বাংলাদেশ শ্রমিককল্যাণ ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাবেক এমপি মাওলানা আনম শামসুল ইসলামকে গ্রেফতারের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে দলটির আমির ডা: শফিকুর রহমান।

বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির, বাংলাদেশ শ্রমিককল্যাণ ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাবেক এমপি মাওলানা আনম শামসুল ইসলামকে বুধবার দিবাগত রাতে রাজধানীর উত্তরার একটি বাসা থেকে পুলিশ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে।

তিনি বলেন, এর আগে গত ৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর বসুন্ধরা এলাকা থেকে জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার ও কেন্দ্রীয় ৬ জন নেতৃবৃন্দসহ ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়- এ ছাড়া গত দু’দিনে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে জামায়াত ও বাংলাদেশ ইসলামী শিবিরের ১৫ জন নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সরকার পুলিশ দিয়ে একের পর এক জামায়াতের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিয়ে হয়রানি করছে। নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করার মাধ্যমে সরকার জামায়াতকে নেতৃত্ব শূন্য করার যে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে তা কখনো সফল হবে না। আমরা সরকারের অন্যায় গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

জামায়াত আমীর আরো বলেন, আমরা স্পষ্ট ভাষায় জানাতে চাই, এভাবে গ্রেফতার-হয়রানি ও জুলুম-নির্যাতন করে কোনো আদর্শিক সংগঠনকে দমিয়ে রাখা যায় না। অবিলম্বে গ্রেফতার-হয়রানি বন্ধ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির ও সাবেক এমপি মাওলানা আনম শামসুল ইসলাম এবং কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ সারাদেশে গ্রেফতারকৃত জামায়াত-শিবিরের সকল নেতা-কর্মীকে নিঃশর্তভাবে মুক্তি দেয়ার জন্য আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।

মন্তব্য