প্রচ্ছদ

সীমান্তে এক ব্যবসায়ীকে হত্যা করে অন্যজনকে ধরে নিয়ে গেলো বিএসএফ

2022/01/09/_post_thumb-2022_01_09_17_07_48.png

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার সীমান্ত থেকে শাকিল (২০) নামের এক বাংলাদেশি গরু ব্যবসায়ীকে ধরে নিয়ে গেছে বিএসএফ। এর একদিন আগে নওগাঁর সাপাহার হাপানিয়া সীমান্তে আরও এক ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা করে বিএসএফ।

জানা যায়, রোববার ভোরে ভারতের দীঘলটারী বিওপির বিএসএফের টহল দল শাকিলকে ধরে নিয়ে যায়। 

শাকিল উপজেলার পাথরডুবি ইউনিয়নের দক্ষিণ বাঁশজানি গ্রামের অধিবাসী আহাম্মদ আলীর ছেলে।

তাকে ধরে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পাথরডুবি ইউনিয়ন পরিষদের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আরফান হোসেন।

তিনি জানান, শাকিলসহ আরও কয়েকজন গরু আনার জন্য ভোররাতে সীমান্তে যায়। এরপর ওই এলাকায় কাঁটাতারের বেড়া না থাকার সুযোগে আন্তর্জাতিক সীমানা পিলার ৯৭৬-এর ৬ এস সাব-পিলারের পার্শ্ববর্তী এলাকা দিয়ে জিরো লাইন অতিক্রম করে  ভারতের ভূ-খণ্ডের ১৫০ মিটার অভ্যন্তরে দীঘলটারী গ্রামের দলবাড়ি এলাকায় প্রবেশ করে তারা। এ সময় ওই এলাকায় টহলরত সময় বিএসএফ সদস্যরা তাদের ধাওয়া করলে সবাই পালিয়ে চলে আসলেও শাকিল ধরা পড়েন।

এদিকে এই খবর লোকমুখে শোনার পর বিষটি সম্পর্কে জানতে দুপুর ১টার দিকে বিজিবির ময়দান বিওপি থেকে বিএসএফের দীঘলটারী বিওপিতে চিঠি পাঠানো হলেও বিকেল ৪টা পর্যন্ত সময়ে তারা কোনো জবাব দেয়নি।

এ বিষয়ে কুড়িগ্রামস্থ ২২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল মো. আব্দুল মোত্তাকিম বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। তবে কোনো পক্ষ থেকে আমাদেরকে কেউ কিছু জানায়নি। এই পরিস্থিতিতে ঘটনাটি জানতে বিজিবির পক্ষ থেকে বিএসএফের  বিওপি পর্যায়ে যোগাযোগ করা হলে এখন পর্যন্ত কোনো জবাব পাওয়া যায়নি।

অন্যদিকে  শনিবার ভোরে হাপানিয়া সীমান্তের ২৩৬ নম্বর পিলারে ভারতের অভ্যন্তরে ‘নো-ম্যান্স ল্যান্ডে’ এ ঘটনা ঘটে। নিহত সালাউদ্দীন উপজেলার কৃষ্ণসদা গ্রামের আলাউদ্দীনের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার হাপানিয়া সীমান্ত দিয়ে চোড়াই পথে ভারতের অভ্যন্তরে গরু আনতে যায় সালাউদ্দীনসহ ৮-১০ জন ব্যবসায়ী। শনিবার ভোরে গরু নিয়ে ফেরার পথে ২৩৬ পিলারে ‘নো-ম্যান্স ল্যান্ডে’ তাদের লক্ষ্য করে গুলি চালান পান্নাপুর ৬৯ বিএসএফ সদস্যরা। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান সালাউদ্দীন। এ সময় তার সহযোগীরা পালিয়ে যান। 

১৬ বিজিবি সাপাহার হাপানিয়া ক্যাম্পের কমান্ডার আব্দুল আজিজ বলেন, মরদেহটি ভারতীয় কাঁটা তারের প্রাচীর ঘেঁষে নো-ম্যান্স ল্যান্ডের ভারত ভূখণ্ডে পড়ে আছে বলে শুনেছি। এ বিষয়ে পান্নাপুর বিএসএফ ক্যাম্পে পতাকা বৈঠকের জন্য মেসেজ পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য