প্রচ্ছদ

সাংবাদিকদের ‘অণ্ডকোষ’ ছিঁড়ে হত্যার হুমকি দেয়া সেই আ’লীগ নেতার ভিডিও ফাঁস

2022/05/26/_post_thumb-2022_05_26_21_33_00.jpg

সম্প্রতি তিন সাংবাদিককে ‘অণ্ডকোষ’ ছিঁড়ে হত্যার হুমকি দেয়ার একটি  অডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এই হুমকি দাতা সাভার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ.লীগের সাধারন সম্পাদক মঞ্জুুরুল আলম রাজীব।

মঙ্গলবার দুপুরে সাভার উপজেলা পরিষদের কনফারেন্স রুমে সাভার প্রেসক্লাব বেদখল ও নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা সভায়, তিন সাংবাদিক বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেল এনটিভি’র বিশেষ প্রতিনিধি জাহিদুর রহমান, বাংলা ট্রিবিউনের সাভার প্রতিনিধি নাদিম হোসেন ও দৈনিক যুগান্তরের নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার মতিউর রহমান ভান্ডারীকে এই হুমকি দেন তিনি।

ভাইরাল হওয়া ওই ওডিওতে  আওয়ামীলীগ নেতা রাজীবকে বলতে শোনা যায়, জাহিদ, নাদিম আর মইত্যা চুরারে আমার পোলাপান যেইহানে (যেখানে) পাইবো প্লাস দিয়া টাইন্যা ‘বিচি’ (অন্ডকোষ) ছিড়া হালায়া দিবো। এইডাই আমার প্রক্রিয়া। ওরা কোন সময় কোথায় যায়, কহন কি করে টাইম টু টাইম আমার লোক খবর দেয়। আমি ডিক্লার।

এসময় তিনি বলেন, বলে কিছু জিনিস তো আমি মস্তাানি কইরাই করি, কি কইবা? হুনো, হুনো (শুনো) তুমরা রেকর্ড কইরা নিয়া যাও।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক সাংবাদিক বলেন, রাজনৈতিক নেতারা জমি দখল করে। এমন অসংখ্য সংবাদের প্রতিবেদন আমরা করেছি কিন্তু প্রেসক্লাব দখল করে আ.লীগ নেতার বাবার নামে পাঠাগার করার ঘটনা দেশে বিরল।

এর আগে করোনাকালীন সময় ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন দৈনিক যুগান্তরে প্রকাশ হয়। এরপর সাভার উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুরুল আলম রাজীব যুগান্তরের ওই প্রতিবেদককে মুঠোফোনে হত্যার হুমকি দেয়। এবার প্রকাশ্যে প্লাস দিয়ে ‘অন্ডকোষ’ ছিড়ে ফেলে হত্যার হুমকি দিয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

এদিকে এই আওয়ামীলীগ নেতার একটি অশ্লীল ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ভিডিওতে দেখা যায়, তাসপিয়া ইসলাম নামে এক তরুণী সাথে ভিডিও কলে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করতে দেখা যায়। ভিডিওর ওই তরুণী সাভার মডেল কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি। ইতমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই  ভিডিও ভাইরাল হয়েগেছে। তার এই মাস্তানির আড়ালে পদের লোভ দেখিয়ে একাধিক নারীকে বসেে এনে হয়রানির অভিযোগও উঠেছে। এছাড়া জমি দখল, লুটপাটসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে এই নেতার বিরুদ্ধে।


মন্তব্য