ঢাকা ০৭:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আর দেখা না হলে এখানেই বিদায়: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ১০:০৪:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ নভেম্বর ২০২৩
  • / ১০৭ বার পড়া হয়েছে

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা শেষে সাংবাদিকদের কাছ থেকে বিদায় নিলেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম। তিনি জানিয়েছেন যে আগামী নির্বাচনের আগে আজ বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত একনেক সভাই ছিল শেষ সভা, তাই অনেকগুলো প্রকল্প পাস করতে হয়েছে।

শামসুল আলম বলেন, ‘আমরা দুজনই (পরিকল্পনামন্ত্রী ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী) উন্নয়নমুখী ছিলাম। আমরা আমাদের কাজ ফেলে যেতে চাইনি। তাই শেষ মুহূর্তে অনেক প্রকল্প একনেকে পাস হয়েছে।’

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আগামী দুই মাস একনেক সভা হবে না। এরপর কে থাকব, কে থাকব না, জানি না। গত পাঁচ বছর চেষ্টা করেছি। আর দেখা না হলে এখানেই বিদায়। ভুলভ্রান্তি হলে ক্ষমাপ্রার্থী।’

শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। আজকের একনেক সভায় সব মিলিয়ে ৩৯ হাজার ৩৪৪ কোটি টাকার ৪৪টি প্রকল্প পাস হয়। এটি এক একনেক সভায় রেকর্ডসংখ্যক প্রকল্প পাসের ঘটনা। এসব প্রকল্পে সরকারি অর্থায়ন হবে ৩০ হাজার ১২৩ কোটি টাকা এবং বিদেশি ঋণ হিসেবে পাওয়া যাবে ৭ হাজার ৫৭৯ কোটি টাকা। এ ছাড়া প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা দেবে ১ হাজার ৬৩৯ কোটি টাকা।

শেষ মুহূর্তে এত প্রকল্প পাস কেন, এ প্রশ্নের জবাবে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘আমরা প্রকল্প তৈরি করতে পরিপক্ব হয়ে গেছি। প্রকল্প তৈরি করে করে পেকে পেকে দুর্দান্ত হয়ে গেছি।’

এ বিষয়ে পরিকল্পনাসচিব সত্যজিৎ কর্মকার বলেন, আজ পাস হওয়া ৪৪টি প্রকল্পের মধ্যে ১৪টি প্রকল্প সংশোধিত প্রকল্প। এগুলো পাস না করলে কাজ বন্ধ হয়ে যেত। আটটি প্রকল্পে উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে ঋণ চুক্তি হয়ে গেছে। সুতরাং আজ এসব পাস না হলে টাকা পাওয়া যেত না। নির্বাচনের সঙ্গে এসব প্রকল্প পাসের সম্পর্ক নেই। একই সঙ্গে লোক দেখানোরও কিছু নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

আর দেখা না হলে এখানেই বিদায়: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

আপডেট সময় ১০:০৪:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ নভেম্বর ২০২৩

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভা শেষে সাংবাদিকদের কাছ থেকে বিদায় নিলেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম। তিনি জানিয়েছেন যে আগামী নির্বাচনের আগে আজ বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত একনেক সভাই ছিল শেষ সভা, তাই অনেকগুলো প্রকল্প পাস করতে হয়েছে।

শামসুল আলম বলেন, ‘আমরা দুজনই (পরিকল্পনামন্ত্রী ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী) উন্নয়নমুখী ছিলাম। আমরা আমাদের কাজ ফেলে যেতে চাইনি। তাই শেষ মুহূর্তে অনেক প্রকল্প একনেকে পাস হয়েছে।’

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আগামী দুই মাস একনেক সভা হবে না। এরপর কে থাকব, কে থাকব না, জানি না। গত পাঁচ বছর চেষ্টা করেছি। আর দেখা না হলে এখানেই বিদায়। ভুলভ্রান্তি হলে ক্ষমাপ্রার্থী।’

শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলনকেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। আজকের একনেক সভায় সব মিলিয়ে ৩৯ হাজার ৩৪৪ কোটি টাকার ৪৪টি প্রকল্প পাস হয়। এটি এক একনেক সভায় রেকর্ডসংখ্যক প্রকল্প পাসের ঘটনা। এসব প্রকল্পে সরকারি অর্থায়ন হবে ৩০ হাজার ১২৩ কোটি টাকা এবং বিদেশি ঋণ হিসেবে পাওয়া যাবে ৭ হাজার ৫৭৯ কোটি টাকা। এ ছাড়া প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা দেবে ১ হাজার ৬৩৯ কোটি টাকা।

শেষ মুহূর্তে এত প্রকল্প পাস কেন, এ প্রশ্নের জবাবে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘আমরা প্রকল্প তৈরি করতে পরিপক্ব হয়ে গেছি। প্রকল্প তৈরি করে করে পেকে পেকে দুর্দান্ত হয়ে গেছি।’

এ বিষয়ে পরিকল্পনাসচিব সত্যজিৎ কর্মকার বলেন, আজ পাস হওয়া ৪৪টি প্রকল্পের মধ্যে ১৪টি প্রকল্প সংশোধিত প্রকল্প। এগুলো পাস না করলে কাজ বন্ধ হয়ে যেত। আটটি প্রকল্পে উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে ঋণ চুক্তি হয়ে গেছে। সুতরাং আজ এসব পাস না হলে টাকা পাওয়া যেত না। নির্বাচনের সঙ্গে এসব প্রকল্প পাসের সম্পর্ক নেই। একই সঙ্গে লোক দেখানোরও কিছু নেই।