ঢাকা ০৩:৫৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপির মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ, গ্রেফতার ৮

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ০৩:৩৮:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ১৫৯ বার পড়া হয়েছে

বরিশালে বিএনপির মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জের কেন্দ্রীয় নেতা আকন কুদ্দুসুর রহমানসহ দলের ১০-১৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এ সময় বরিশাল দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবুল হোসেন খানসহ ৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার দুপুর ১২টায় নগরীর অশ্বিনী কুমার হল চত্বরে এ ঘটনা ঘটে।

দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতউল্লাহ জানান, কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী সদর রোডের দলীয় কার্যালয় থেকে নির্বাচন বর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনের সমর্থনে লিফলেট বিতরণের জন্য দলীয় নেতাকর্মীরা জড়ো হন। বিভিন্ন এলাকা থেকেও খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে আসেন নেতাকর্মীরা। শুরু থেকেই মিছিলকারীদের বাধা দিচ্ছিল পুলিশ। পরে নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে লিফলেট বিতরণের জন্য বের হতে গেলে বাধা দেওয়ার পাশাপাশি শুরু হয় লাঠিচার্জ।

বরিশাল দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব আবুল কালাম শাহিন বলেন, নির্বিচার লাঠিচার্জের পাশাপাশি নেতাকর্মীদের ধরে ধরে গাড়িতে তুলতে থাকে পুলিশ। এ সময় কেন্দ্রীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমানসহ দলের ১৫-২০ নেতাকর্মী আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার করা হয় দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক এমপি আবুল হোসেন খানসহ ৮ জনকে। পুলিশের বেপরোয়া লাঠিচার্জের মুখে ছত্রভঙ্গ হয়ে যান নেতাকর্মীরা।

বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আরিচুর রহমান বলেন, কোনোরকম পূর্বানুমতি ছাড়াই জড়ো হওয়া নেতাকর্মীদের সেখান থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কোনো সহিংস আচরণ করেনি পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছি আমরা। বিস্তারিত পর জানাতে পারব।

নিউজটি শেয়ার করুন

বিএনপির মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ, গ্রেফতার ৮

আপডেট সময় ০৩:৩৮:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জানুয়ারী ২০২৪

বরিশালে বিএনপির মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জের কেন্দ্রীয় নেতা আকন কুদ্দুসুর রহমানসহ দলের ১০-১৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এ সময় বরিশাল দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবুল হোসেন খানসহ ৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার দুপুর ১২টায় নগরীর অশ্বিনী কুমার হল চত্বরে এ ঘটনা ঘটে।

দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতউল্লাহ জানান, কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী সদর রোডের দলীয় কার্যালয় থেকে নির্বাচন বর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনের সমর্থনে লিফলেট বিতরণের জন্য দলীয় নেতাকর্মীরা জড়ো হন। বিভিন্ন এলাকা থেকেও খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে আসেন নেতাকর্মীরা। শুরু থেকেই মিছিলকারীদের বাধা দিচ্ছিল পুলিশ। পরে নেতৃবৃন্দের সমন্বয়ে লিফলেট বিতরণের জন্য বের হতে গেলে বাধা দেওয়ার পাশাপাশি শুরু হয় লাঠিচার্জ।

বরিশাল দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব আবুল কালাম শাহিন বলেন, নির্বিচার লাঠিচার্জের পাশাপাশি নেতাকর্মীদের ধরে ধরে গাড়িতে তুলতে থাকে পুলিশ। এ সময় কেন্দ্রীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমানসহ দলের ১৫-২০ নেতাকর্মী আহত হন। ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার করা হয় দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক এমপি আবুল হোসেন খানসহ ৮ জনকে। পুলিশের বেপরোয়া লাঠিচার্জের মুখে ছত্রভঙ্গ হয়ে যান নেতাকর্মীরা।

বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আরিচুর রহমান বলেন, কোনোরকম পূর্বানুমতি ছাড়াই জড়ো হওয়া নেতাকর্মীদের সেখান থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কোনো সহিংস আচরণ করেনি পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছি আমরা। বিস্তারিত পর জানাতে পারব।