ঢাকা ০৭:২৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ১০:৫৬:৩০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৬০ বার পড়া হয়েছে

নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের মামলায় ঝিনাইদহ-১ আসনে নৌকার প্রার্থী আব্দুল হাই, শৈলকুপা উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম ও সারুটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মামুনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

বুধবার সন্ধ্যায় অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বৈজয়ন্ত বিশ্বাসের আদালত এ আদেশ দেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঝিনাইদহ জর্জ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর ইসমাইল হোসেন।

আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে গত ২৪ ডিসেম্বর ইসির নির্দেশনায় মামলাটি করেন শৈলকুপা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১০ ডিসেম্বর ঝিনাইদহ-১ আসনে নৌকার প্রার্থী ও বর্তমান সংসদ সদস্য আব্দুল হাইয়ের সমর্থকরা দেশিয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেন। একই মাসের ১২ তারিখে সারুটিয়া ইউনিয়নের কাতলাগাড়ি বাজারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর এজেন্টদের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেন শৈলকূপা উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম ও সারুটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মামুন। এটা নির্বাচনী আচরণবিধির লঙ্ঘন। এ ঘটনায় তিনজনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা হয়। ওই মামলার শুনানির নির্ধারিত দিন (বুধবার) তারা আদালতে হাজির হননি। ফলে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম চৌধুরী জানান, গ্রেপ্তারি পরোয়ানার কাগজ তিনি হাতে পাননি। কাগজপত্র পেলে তিনি আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

আপডেট সময় ১০:৫৬:৩০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪

নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের মামলায় ঝিনাইদহ-১ আসনে নৌকার প্রার্থী আব্দুল হাই, শৈলকুপা উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম ও সারুটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মামুনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

বুধবার সন্ধ্যায় অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বৈজয়ন্ত বিশ্বাসের আদালত এ আদেশ দেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ঝিনাইদহ জর্জ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর ইসমাইল হোসেন।

আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে গত ২৪ ডিসেম্বর ইসির নির্দেশনায় মামলাটি করেন শৈলকুপা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তাজুল ইসলাম।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১০ ডিসেম্বর ঝিনাইদহ-১ আসনে নৌকার প্রার্থী ও বর্তমান সংসদ সদস্য আব্দুল হাইয়ের সমর্থকরা দেশিয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেন। একই মাসের ১২ তারিখে সারুটিয়া ইউনিয়নের কাতলাগাড়ি বাজারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর এজেন্টদের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক বক্তব্য দেন শৈলকূপা উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম ও সারুটিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান মামুন। এটা নির্বাচনী আচরণবিধির লঙ্ঘন। এ ঘটনায় তিনজনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা হয়। ওই মামলার শুনানির নির্ধারিত দিন (বুধবার) তারা আদালতে হাজির হননি। ফলে তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম চৌধুরী জানান, গ্রেপ্তারি পরোয়ানার কাগজ তিনি হাতে পাননি। কাগজপত্র পেলে তিনি আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন।