ঢাকা ০৪:১৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নরসিংদীতে মন্ত্রীর ছেলের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানকে গুলির অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ১১:৪০:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৮৭ বার পড়া হয়েছে

নরসিংদী–৪ (মনোহরদী) আসনে নৌকার প্রার্থী ও শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুনের ছেলে মঞ্জুরুল মজিদ মাহমুদ সাদীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম খান বিরুর সমর্থক ও চন্দনবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ হিরনকে লক্ষ্য করে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে। তবে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়েছে বলে দাবি করেন চেয়ারম্যান হিরন।

আজ শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে চন্দনবাড়ী ইউনিয়নের চন্দনবাড়ী গ্রামে চেয়ারম্যানের বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। প্রশাসনকে এ ঘটনা জানানোর পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে জেলা প্রশাসন।

ভুক্তভোগী চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ হিরন বলেন, ‘আমি নিজের বাসা থেকে পাশে বাজারের দিকে যাচ্ছিলাম। বাড়ি থেকে বের হয়ে পুকুরপাড় দিয়ে যাওয়ার পর মূল রাস্তায় ওঠার আগে দুটি হায়েস গাড়ি ও একটি অ্যাম্বুলেন্স থেকে নৌকার মনোনীত প্রার্থী শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুনের ছেলে মঞ্জুরুল মাজিদ মাহমুদ সাদীর নেতৃত্বে ৮–৯ জন ব্যক্তি আমার ওপর হামলার চেষ্টা করে। এ সময় সাদী আমাকে লক্ষ্য করে ৪–৫ রাউন্ড গুলি করে। তখন প্রাণে বাঁচতে ইটের স্তূপের পেছন দিয়ে দৌড়ে চাচার বাসায় গিয়ে দরজা লাগিয়ে দেই। পরে আমার চাচার ঘরেও হামলা চালানো হয়। পালিয়ে আসায় কোনো গুলি আমার শরীরে লাগেনি। গুলির শব্দে এলাকাবাসী বের হয়ে তাদের প্রতিহত করলে পালিয়ে যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি পুলিশ ও ইউএনওকে ঘটনাটি জানিয়েছি। পুলিশ ও প্রশাসনের লোকজন ঘটনাস্থল পরিদর্শনে করেছে।’

অভিযুক্ত কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী মঞ্জুরুল মজিদ মাহমুদ সাদীকে ফোন কল করা হলে রিসিভ করেননি। এসএমএস পাঠালেও জবাব দেননি।

এ বিষয়ে নরসিংদীর পুলিশ সুপার (এসপি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমাদের বিষয়টি জানানো হয়েছে। প্রথমে শুনেছি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ হিরন পানিতে পড়ে গেছেন। পরে শুনেছি গুলিও করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রত্যক্ষদর্শী কোনো সাক্ষীও নেই। আমিও জেলা প্রশাসককে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে যাচ্ছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

নরসিংদীতে মন্ত্রীর ছেলের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানকে গুলির অভিযোগ

আপডেট সময় ১১:৪০:২১ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২৪

নরসিংদী–৪ (মনোহরদী) আসনে নৌকার প্রার্থী ও শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুনের ছেলে মঞ্জুরুল মজিদ মাহমুদ সাদীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম খান বিরুর সমর্থক ও চন্দনবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ হিরনকে লক্ষ্য করে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে। তবে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়েছে বলে দাবি করেন চেয়ারম্যান হিরন।

আজ শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে চন্দনবাড়ী ইউনিয়নের চন্দনবাড়ী গ্রামে চেয়ারম্যানের বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। প্রশাসনকে এ ঘটনা জানানোর পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে জেলা প্রশাসন।

ভুক্তভোগী চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ হিরন বলেন, ‘আমি নিজের বাসা থেকে পাশে বাজারের দিকে যাচ্ছিলাম। বাড়ি থেকে বের হয়ে পুকুরপাড় দিয়ে যাওয়ার পর মূল রাস্তায় ওঠার আগে দুটি হায়েস গাড়ি ও একটি অ্যাম্বুলেন্স থেকে নৌকার মনোনীত প্রার্থী শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুনের ছেলে মঞ্জুরুল মাজিদ মাহমুদ সাদীর নেতৃত্বে ৮–৯ জন ব্যক্তি আমার ওপর হামলার চেষ্টা করে। এ সময় সাদী আমাকে লক্ষ্য করে ৪–৫ রাউন্ড গুলি করে। তখন প্রাণে বাঁচতে ইটের স্তূপের পেছন দিয়ে দৌড়ে চাচার বাসায় গিয়ে দরজা লাগিয়ে দেই। পরে আমার চাচার ঘরেও হামলা চালানো হয়। পালিয়ে আসায় কোনো গুলি আমার শরীরে লাগেনি। গুলির শব্দে এলাকাবাসী বের হয়ে তাদের প্রতিহত করলে পালিয়ে যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি পুলিশ ও ইউএনওকে ঘটনাটি জানিয়েছি। পুলিশ ও প্রশাসনের লোকজন ঘটনাস্থল পরিদর্শনে করেছে।’

অভিযুক্ত কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী মঞ্জুরুল মজিদ মাহমুদ সাদীকে ফোন কল করা হলে রিসিভ করেননি। এসএমএস পাঠালেও জবাব দেননি।

এ বিষয়ে নরসিংদীর পুলিশ সুপার (এসপি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমাদের বিষয়টি জানানো হয়েছে। প্রথমে শুনেছি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ হিরন পানিতে পড়ে গেছেন। পরে শুনেছি গুলিও করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রত্যক্ষদর্শী কোনো সাক্ষীও নেই। আমিও জেলা প্রশাসককে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে যাচ্ছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’