ঢাকা ০৭:১৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নতুন কর্মসূচীর ঘোষণা দিল জামায়াত

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৭:৫৪:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪
  • / ১২২ বার পড়া হয়েছে

পবিত্র রমজান এবং ঈদের পর দলের নেতাকর্মীদের সক্রিয় করতে একের পর এক নানা কর্মসূচি দিচ্ছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। তারই ধারাবাহিকতায় আজ শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) গণসংযোগ পক্ষের উদ্বোধন করেছেন দলটির আমির ডা. শফিকুর রহমান। এই গণসংযোগ চলবে আগামী ৩ মে পর্যন্ত।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী রাজপথের আন্দোলনে বদ্ধপরিকর বলে মন্তব্য করেছেন দলটির আমির ডা. শফিকুর রহমান।

তিনি বলেন, ইসলামের সুমহান আদর্শের দাওয়াত ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে হবে। পাড়া-প্রতিবেশী, সহকর্মী, আত্মীয়-স্বজন কেউই আমাদের দাওয়াতের বাইরে থাকবে না। আর সর্ব প্রথম দাওয়াত হবে নিজের নফসের প্রতি। আমাদের কথা ও কাজে যেন অমিল না থাকে। যেটা মানুষকে করতে বলব, সেটা যেন আমি নিজে আগে আমল করি। ইসলামী আন্দোলনের প্রতিটি জনশক্তির কথাবার্তা, লেনদেন, সামাজিক কাজকর্ম আল্লাহর দ্বীন বা কোরআন অনুযায়ী হতে হবে। যতই বাঁধা আসুক আমরা ইকামাতে দ্বীনের কাজ চালিয়ে যাব। মানুষের বিপদে আপদে পাশে দাঁড়াতে হবে। জনকল্যাণমূলক কাজে নিজেদের আত্মনিয়োগ করতে হবে। তাহলেই আমাদের দাওয়াত কার্যকর হবে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের উদ্যোগে অনলাইন মাধ্যম জুম, ইউটিউব ও ফেসবুক লাইভ-এ ঈদপুনর্মিলনী ও গণসংযোগ পক্ষের উদ্বোধনে এসব কথা বলেন।

ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমির মুহাম্মদ নূরুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম খান, এএইচএম হামিদুর রহমান আযাদ, মাওলানা আব্দুল হালিম, ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি মনজুরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মতিউর রহমান আকন্দ, মোবারক হোসাইন, ঢাকা মহানগরী উত্তরের আমির মো. সেলিম উদ্দিন, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ড. খলিলুর রহমান মাদানী, বিএফইউজের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী প্রমুখ।

ডা. শফিকুর রহমান বলেন, রাজপথে মাঠে ময়দানে সরাসরি অংশগ্রহণের মাধ্যমে আমরা আন্দোলনের লড়াকু, সংগ্রামী ও একনিষ্ঠ সহযোদ্ধা তৈরি করতে বদ্ধপরিকর। বিপ্লবী ও সাহসী জনশক্তি তৈরি করতে নেতৃবৃন্দের সহবতের বিকল্প নেই। তাই আমাদের অনলাইনের পরিবর্তে প্রকাশ্যে প্রোগ্রাম করতে হবে। অনলাইনে আরামপ্রিয় জনশক্তি তৈরি হবে, আল্লাহ দ্বীন বিজয়ের জন্য বিপ্লবী কর্মী তৈরি হবে না। ইকামতে দ্বিনের কাজকে ভালোভাবে বুঝে ময়দানে ভূমিকা পালন করতে হবে। জামায়াতের প্রত্যেক জনশক্তির ঈমানী দায়িত্ব হচ্ছে এ দেশের মানুষের মাঝে আল্লাহর দ্বিনের দাওয়াত তথা জামায়াতের দাওয়াত পৌঁছে দেওয়া।

তিনি বলেন, গত জাতীয় নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামী অংশগ্রহণ করেনি। জামায়াতের নির্বাচনী তহবিলের এই টাকা জনকল্যাণে ব্যয় করা হবে। ব্যাপকভাবে সামাজিক কার্যক্রম চালাতে হবে। আমাদের হালাল রুজির উপরে সন্তুষ্ট থাকতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, রমজানের প্রকৃত শিক্ষাকে আমাদের জীবনে কাজে লাগাতে হবে। যারা রমজানে তাকওয়া অর্জনের প্রচেষ্টা চালিয়েছেন মূলত তাদের জন্যই ঈদের আনন্দ। আমীরে জামায়াতের ঘোষণা অনুযায়ী আজ থেকে ১৫ দিনব্যাপী গণসংযোগ পক্ষ চলবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

নতুন কর্মসূচীর ঘোষণা দিল জামায়াত

আপডেট সময় ০৭:৫৪:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

পবিত্র রমজান এবং ঈদের পর দলের নেতাকর্মীদের সক্রিয় করতে একের পর এক নানা কর্মসূচি দিচ্ছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। তারই ধারাবাহিকতায় আজ শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) গণসংযোগ পক্ষের উদ্বোধন করেছেন দলটির আমির ডা. শফিকুর রহমান। এই গণসংযোগ চলবে আগামী ৩ মে পর্যন্ত।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী রাজপথের আন্দোলনে বদ্ধপরিকর বলে মন্তব্য করেছেন দলটির আমির ডা. শফিকুর রহমান।

তিনি বলেন, ইসলামের সুমহান আদর্শের দাওয়াত ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে হবে। পাড়া-প্রতিবেশী, সহকর্মী, আত্মীয়-স্বজন কেউই আমাদের দাওয়াতের বাইরে থাকবে না। আর সর্ব প্রথম দাওয়াত হবে নিজের নফসের প্রতি। আমাদের কথা ও কাজে যেন অমিল না থাকে। যেটা মানুষকে করতে বলব, সেটা যেন আমি নিজে আগে আমল করি। ইসলামী আন্দোলনের প্রতিটি জনশক্তির কথাবার্তা, লেনদেন, সামাজিক কাজকর্ম আল্লাহর দ্বীন বা কোরআন অনুযায়ী হতে হবে। যতই বাঁধা আসুক আমরা ইকামাতে দ্বীনের কাজ চালিয়ে যাব। মানুষের বিপদে আপদে পাশে দাঁড়াতে হবে। জনকল্যাণমূলক কাজে নিজেদের আত্মনিয়োগ করতে হবে। তাহলেই আমাদের দাওয়াত কার্যকর হবে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের উদ্যোগে অনলাইন মাধ্যম জুম, ইউটিউব ও ফেসবুক লাইভ-এ ঈদপুনর্মিলনী ও গণসংযোগ পক্ষের উদ্বোধনে এসব কথা বলেন।

ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমির মুহাম্মদ নূরুল ইসলাম বুলবুলের সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম খান, এএইচএম হামিদুর রহমান আযাদ, মাওলানা আব্দুল হালিম, ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি মনজুরুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মতিউর রহমান আকন্দ, মোবারক হোসাইন, ঢাকা মহানগরী উত্তরের আমির মো. সেলিম উদ্দিন, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ড. খলিলুর রহমান মাদানী, বিএফইউজের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী প্রমুখ।

ডা. শফিকুর রহমান বলেন, রাজপথে মাঠে ময়দানে সরাসরি অংশগ্রহণের মাধ্যমে আমরা আন্দোলনের লড়াকু, সংগ্রামী ও একনিষ্ঠ সহযোদ্ধা তৈরি করতে বদ্ধপরিকর। বিপ্লবী ও সাহসী জনশক্তি তৈরি করতে নেতৃবৃন্দের সহবতের বিকল্প নেই। তাই আমাদের অনলাইনের পরিবর্তে প্রকাশ্যে প্রোগ্রাম করতে হবে। অনলাইনে আরামপ্রিয় জনশক্তি তৈরি হবে, আল্লাহ দ্বীন বিজয়ের জন্য বিপ্লবী কর্মী তৈরি হবে না। ইকামতে দ্বিনের কাজকে ভালোভাবে বুঝে ময়দানে ভূমিকা পালন করতে হবে। জামায়াতের প্রত্যেক জনশক্তির ঈমানী দায়িত্ব হচ্ছে এ দেশের মানুষের মাঝে আল্লাহর দ্বিনের দাওয়াত তথা জামায়াতের দাওয়াত পৌঁছে দেওয়া।

তিনি বলেন, গত জাতীয় নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামী অংশগ্রহণ করেনি। জামায়াতের নির্বাচনী তহবিলের এই টাকা জনকল্যাণে ব্যয় করা হবে। ব্যাপকভাবে সামাজিক কার্যক্রম চালাতে হবে। আমাদের হালাল রুজির উপরে সন্তুষ্ট থাকতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, রমজানের প্রকৃত শিক্ষাকে আমাদের জীবনে কাজে লাগাতে হবে। যারা রমজানে তাকওয়া অর্জনের প্রচেষ্টা চালিয়েছেন মূলত তাদের জন্যই ঈদের আনন্দ। আমীরে জামায়াতের ঘোষণা অনুযায়ী আজ থেকে ১৫ দিনব্যাপী গণসংযোগ পক্ষ চলবে।