ঢাকা ০৭:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইউপি সদস্যের ওপর হামলা: যুবলীগ নেতাকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৫:১৩:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪
  • / ১০৯ বার পড়া হয়েছে

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ইউনিয়ন পরিষদে ঢুকে ইউপি সদস্য রেজাউল করিমের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় প্রধান আসামি যুবলীগ নেতা মামুনুর রশীদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৮ মে) বিকাল সাড়ে ৩ টায় সরিষাবাড়ী থানার ওসি মুশফিকুর রহমান প্রেস ব্রিফিং মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের চাপারকোনা গ্রামের আইনুদ্দিন মাস্টারের ছেলে ও যুবলীগ নেতা মামুনুর রশীদ গত বুধবার ১৫ মে দুপুরে ৩ নম্বর ডোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদে দলবল নিয়ে ঢোকে মামুন। এ সময় পরিষদের উদ্যোক্তা ইমরান হোসেনের কক্ষে ঢুকে জোরপূর্বক মেয়ের জন্ম সনদ দিতে বলে সে। জন্ম সনদ দিতে দেরি হওয়ার হাত ভেঙে ফেলার হুমকি দেয় মামুন। এরপর পরিষদের সচিবের কক্ষে ঢুকে ২ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রেজাউল করিমের সঙ্গে অশুভ আচরণ শুরু করে। এর প্রতিবাদ করলে এক পর্যায়ে সচিবের কক্ষে বসে থাকা ইউপি সদস্য রেজাউল করিমকে মারধর করতে থাকে মামুন।

পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এমন ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি মারধরের ভিডিও ভাইরাল হয়। পরে ইউপি সদস্য বাদী হয়ে থানায় মামুনকে প্রধান আসামি করে মামলা দায়ের করেন। শুক্রবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে আসামি মামুনকে গেপ্তার করে পুলিশ।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি মুশফিকুর রহমান বলেন, ইউপি সদস্যকে মারধরের ঘটনা মামলার আসামি মামুনকে ঢাকার ধানমন্ডি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরও একাধিক মামলা রয়েছে। তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ইউপি সদস্যের ওপর হামলা: যুবলীগ নেতাকে ঢাকা থেকে গ্রেপ্তার

আপডেট সময় ০৫:১৩:৫৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ইউনিয়ন পরিষদে ঢুকে ইউপি সদস্য রেজাউল করিমের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় প্রধান আসামি যুবলীগ নেতা মামুনুর রশীদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৮ মে) বিকাল সাড়ে ৩ টায় সরিষাবাড়ী থানার ওসি মুশফিকুর রহমান প্রেস ব্রিফিং মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের চাপারকোনা গ্রামের আইনুদ্দিন মাস্টারের ছেলে ও যুবলীগ নেতা মামুনুর রশীদ গত বুধবার ১৫ মে দুপুরে ৩ নম্বর ডোয়াইল ইউনিয়ন পরিষদে দলবল নিয়ে ঢোকে মামুন। এ সময় পরিষদের উদ্যোক্তা ইমরান হোসেনের কক্ষে ঢুকে জোরপূর্বক মেয়ের জন্ম সনদ দিতে বলে সে। জন্ম সনদ দিতে দেরি হওয়ার হাত ভেঙে ফেলার হুমকি দেয় মামুন। এরপর পরিষদের সচিবের কক্ষে ঢুকে ২ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রেজাউল করিমের সঙ্গে অশুভ আচরণ শুরু করে। এর প্রতিবাদ করলে এক পর্যায়ে সচিবের কক্ষে বসে থাকা ইউপি সদস্য রেজাউল করিমকে মারধর করতে থাকে মামুন।

পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এমন ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি মারধরের ভিডিও ভাইরাল হয়। পরে ইউপি সদস্য বাদী হয়ে থানায় মামুনকে প্রধান আসামি করে মামলা দায়ের করেন। শুক্রবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে আসামি মামুনকে গেপ্তার করে পুলিশ।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি মুশফিকুর রহমান বলেন, ইউপি সদস্যকে মারধরের ঘটনা মামলার আসামি মামুনকে ঢাকার ধানমন্ডি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আরও একাধিক মামলা রয়েছে। তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।