ঢাকা ০৭:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রিমালে মানবিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে নেতাকর্মীদের প্রতি ছাত্রশিবিরের আহবান

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১০:১২:১৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪
  • / ৮১ বার পড়া হয়েছে

ঘূর্ণিঝড় রিমালে আক্রান্ত এলাকায় মানবিক সহায়তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট নেতাকর্মীদের পাশে থাকার আহবান জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

আজ রোববার কেন্দ্রীয় সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল জাহিদুল ইসলাম এক জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে এ আহবান জানান।

কেন্দ্রীয় সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল জাহিদুল ইসলাম বলেন, দায়িত্বশীল সংগঠন হিসেবে মানবিক বিপর্যয়ে মানুষের পাশে থাকা আমাদের একান্ত কর্তব্য। দেশের প্রতিটি প্রাকৃতিক দুর্যোগে ছাত্রশিবির অতীতেও যেমনিভাবে মানুষের পাশে ছিল বর্তমানেও পাশে থাকবে ইনশাআল্লাহ।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে নেতৃবৃন্দরা বলেন, দরদমাখা মন নিয়ে মানুষের শুভাকাঙ্খী হয়ে তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে। তাদের সাহস দিতে হবে, সচেতন করতে হবে। শুধু পরামর্শ নয়; বরং সরাসরি মানুষের পাশে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ পরবর্তী সময় বয়স্ক নারী-পুরুষ, শিশু ও গৃহপালিত পশু নিয়ে অনেক পরিবার বিপাকে পড়ে যায়, এই দুর্যোগ মুহূর্তে নিজেদের সামর্থের সবটুকু দিয়ে অসহায় এ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর যথাসাধ্য চেষ্টা করা দরকার। এছাড়াও আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে শুকনো খাবার, বিশুদ্ধ পানি, খাবার স্যালাইন, প্রাথমিক চিকিৎসা সামগ্রীসহ প্রয়োজনীয় উপকরণের ব্যবস্থা রাখার চেষ্টা করা দরকার।

নিউজটি শেয়ার করুন

রিমালে মানবিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে নেতাকর্মীদের প্রতি ছাত্রশিবিরের আহবান

আপডেট সময় ১০:১২:১৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

ঘূর্ণিঝড় রিমালে আক্রান্ত এলাকায় মানবিক সহায়তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট নেতাকর্মীদের পাশে থাকার আহবান জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

আজ রোববার কেন্দ্রীয় সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল জাহিদুল ইসলাম এক জরুরী বিজ্ঞপ্তিতে এ আহবান জানান।

কেন্দ্রীয় সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম ও সেক্রেটারি জেনারেল জাহিদুল ইসলাম বলেন, দায়িত্বশীল সংগঠন হিসেবে মানবিক বিপর্যয়ে মানুষের পাশে থাকা আমাদের একান্ত কর্তব্য। দেশের প্রতিটি প্রাকৃতিক দুর্যোগে ছাত্রশিবির অতীতেও যেমনিভাবে মানুষের পাশে ছিল বর্তমানেও পাশে থাকবে ইনশাআল্লাহ।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে নেতৃবৃন্দরা বলেন, দরদমাখা মন নিয়ে মানুষের শুভাকাঙ্খী হয়ে তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে। তাদের সাহস দিতে হবে, সচেতন করতে হবে। শুধু পরামর্শ নয়; বরং সরাসরি মানুষের পাশে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে হবে। দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ পরবর্তী সময় বয়স্ক নারী-পুরুষ, শিশু ও গৃহপালিত পশু নিয়ে অনেক পরিবার বিপাকে পড়ে যায়, এই দুর্যোগ মুহূর্তে নিজেদের সামর্থের সবটুকু দিয়ে অসহায় এ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর যথাসাধ্য চেষ্টা করা দরকার। এছাড়াও আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে শুকনো খাবার, বিশুদ্ধ পানি, খাবার স্যালাইন, প্রাথমিক চিকিৎসা সামগ্রীসহ প্রয়োজনীয় উপকরণের ব্যবস্থা রাখার চেষ্টা করা দরকার।