জাতীয়

বছরে ৬৪ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করে গার্মেন্টস মালিকরা

2021/02/22/_post_thumb-2021_02_22_15_35_06.jpg

দুদক সচিব ডক্টর আনোয়ার হোসেন হাওলাদার জানিয়েছেন, দেশের কতিপয় গার্মেন্টের মালিক ইনভয়েস জালিয়াতির মাধ্যমে বছরে ৬৪ হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে। এনবিআর থেকে পাওয়া তথ্যে সুনির্দিষ্টভাবে আল মুসলিম গ্রুপের ১৭৫ কোটি টাকা পাচারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে চার সদস্যের কমিটি কাজ করছে।

দেশি-বিদেশি গবেষণায় উঠে আসা এ তথ্য ধরেই অনুসন্ধান শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অনুসন্ধান প্রক্রিয়ায় রবিবার ‘সন্দেহভাজন গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি মালিক’দের তথ্য চেয়েছে সংস্থাটি। এনবিআর এবং বাংলাদেশ ব্যাংককে চিঠি দিয়ে এসব তথ্য চাওয়া হয়েছে। সংস্থার উপ-পরিচালক বিল্লাল হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের টিম বিষয়টি অনুসন্ধান করছে। সহকারী পরিচালক আতাউল কবির এবং বজলুর রশিদ টিমের অপর দুই সদস্য।

দুদক সূত্র জানায়, ওয়াশিংটন ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেগ্রিটি (জিএফআই) গতবছর ৩ মার্চ অর্থ পাচার সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনটি বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমেও গুরুত্ব সহকারে প্রকাশিত হয়। এছাড়া বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইউ)র আমদানি-রফতানির মাধ্যমে অর্থ পাচারের বিষয়টি শনাক্ত করে। সন্দেহভাজনদের একটি তালিকা দুদকে পাঠায় ব্যবস্থার নেয়ার জন্য। এ প্রেক্ষিতে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় কমিশন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ ইসির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগও যাচাই-বাছাই করছে দুদক। 

মন্তব্য