ঢাকা ০৮:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুক্তরাষ্ট্রের কোনো চাপকে আমরা পাত্তা দিচ্ছি না : শ ম রেজাউল করীম

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ১০:১৮:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর ২০২৩
  • / ২০৭ বার পড়া হয়েছে

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, ‘নির্বাচন ইস্যুতে আমেরিকার কোনো ধরনের চাপকে আমরা কোনো রকম পাত্তা দিচ্ছি না।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি এখন হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে আবোল তাবোল বকছে। বিএনপির অনেক নেতা বহুবার বলেছেন এই ডিসেম্বরে ক্ষমতায় আসবে। কেউ বলেছে পহেলা জানুয়ারি থেকে রাষ্ট্র চালাবে তারেক রহমান। কেউ বলেছে ম্যাডাম খালেদা জিয়া দুই সপ্তাহের মধ্যে বেরিয়ে আসবেন, এগুলো হচ্ছে হতাশায় এলোমেলো কথা বলার পরিচয়।’

বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) বিকেলে সাভারের সিএনবি এলাকায় বিসিএস লাইভস্টক একাডেমিতে ডরমিটরি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর, বাংলাদেশ ডেইরি উন্নয়ন বোর্ডের নামফলক এবং বিসিএস লাইভস্টক একাডেমির প্রধান ফটক উদ্বোধন শেষে একথা বলেন মন্ত্রী।

আন্দোলনের নামে দেশে কেউ অরাজকতা সৃষ্টি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়ে শ ম রেজাউল করিম বলেন, বিএনপি নেতাকর্মীরা ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে চাইছে, কিন্তু দেশের মানুষ আবারও আওয়ামী লীগকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনবে এতে কোনো সন্দেহ নেই। বিদেশিদের কথায় বাংলাদেশ চলে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এসময় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ হলো মাটি ও মানুষের দল ১৯৪৯ সালে তৈরি হওয়া একটি সংগঠন। আওয়ামী লীগকে হুমকি দিয়ে হালুয়া-রুটির লোভে কতগুলো লোক একত্র হওয়ার নাম হলো বিএনপি। এদের মধ্যে কেউ মুসলিম লীগার, কেউ স্বাধীনতাবিরোধী, কেউ চাইনিজপন্থি, কেউ অতি জাসদ, কেউ অতি বাম- এরা মিলে একটা দল করেছে। ২০১৩/১৪-তে অগ্নিসন্ত্রাস ও পেট্রোল সন্ত্রাস করে তাদের ইমেজ এতো সংকটে পড়েছে যে সেখান থেকে আর বের হতে পারছে না। লোকজনে বলে মা দুর্নীতির দায়ে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আর ছেলে খুন এবং দুর্নীতির দায়ে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত। ভাড়ায় ড. কামালকে নিয়েছিল এখন ড. কামালও তাদের সঙ্গে নেই। বিএনপির নিজস্ব কোনো নেতৃত্বই নাই।

আগামী ২৮ অক্টোবর বিএনপির কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচির ব্যাপারে তিনি বলেন, এ জাতীয় হুংকারে আওয়ামী লীগ বিচলিত নয়। ২৮ তারিখ কেনো নির্বাচনের আগের দিন পর্যন্ত সাংবিধানিকভাবে শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকবে এবং গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচন হবে। যারা ভোট পাবেন তারা সরকার পরিচালনা করবেন। শেখ হাসিনা সরকার আইনের বাইরে কিচ্ছু করবে না। দেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান। সংবিধানে বলা হয়েছে একটি নির্বাচিত সরকার আরেকটি নির্বাচিত সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করবে এর মাঝখানে আর কোনো সুযোগ নাই এটি আমাদের সর্বোচ্চ আদালতে বলে দেওয়া হয়েছে।

বিএনপির তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি ও বৈদেশিক চাপ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ওনারা মামা বাড়ির আবদার করলে তো আর হবে না। আইনে যেটা নাই নিশ্চয়ই সেটা গ্রহণ করা যাবে না। ১৯৭০ সালে মাওলানা ভাষানীর নেতৃত্বাধীন জোট নির্বাচনে আসে নাই, তাতে কিন্তু মানুষ ভোট দিতে বসে থাকেনি। অসংখ্য দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য বসে আছে বিএনপিরও অনেক নেতারা নির্বাচনে আসবে সময় আসুক দেখবেন। ১৯৭১ সালে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে দেশ যাতে জন্ম নিতে না পারে সেসময় যারা বিরোধিতা করেছে তারা সারা জীবনই করবে এই চাপের কাছে শেখ হাসিনা সরকার আওয়ামী লীগ কখনোই মাথা নত করবে না।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. মো. এমদাদুল হক তালুকদারের সভাপতিত্বে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. নাহিদ রশীদসহ বিসিএস লাইভস্টক একাডেমির কর্মকর্তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

যুক্তরাষ্ট্রের কোনো চাপকে আমরা পাত্তা দিচ্ছি না : শ ম রেজাউল করীম

আপডেট সময় ১০:১৮:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর ২০২৩

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, ‘নির্বাচন ইস্যুতে আমেরিকার কোনো ধরনের চাপকে আমরা কোনো রকম পাত্তা দিচ্ছি না।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি এখন হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে আবোল তাবোল বকছে। বিএনপির অনেক নেতা বহুবার বলেছেন এই ডিসেম্বরে ক্ষমতায় আসবে। কেউ বলেছে পহেলা জানুয়ারি থেকে রাষ্ট্র চালাবে তারেক রহমান। কেউ বলেছে ম্যাডাম খালেদা জিয়া দুই সপ্তাহের মধ্যে বেরিয়ে আসবেন, এগুলো হচ্ছে হতাশায় এলোমেলো কথা বলার পরিচয়।’

বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর) বিকেলে সাভারের সিএনবি এলাকায় বিসিএস লাইভস্টক একাডেমিতে ডরমিটরি ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর, বাংলাদেশ ডেইরি উন্নয়ন বোর্ডের নামফলক এবং বিসিএস লাইভস্টক একাডেমির প্রধান ফটক উদ্বোধন শেষে একথা বলেন মন্ত্রী।

আন্দোলনের নামে দেশে কেউ অরাজকতা সৃষ্টি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়ে শ ম রেজাউল করিম বলেন, বিএনপি নেতাকর্মীরা ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করতে চাইছে, কিন্তু দেশের মানুষ আবারও আওয়ামী লীগকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আনবে এতে কোনো সন্দেহ নেই। বিদেশিদের কথায় বাংলাদেশ চলে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এসময় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ হলো মাটি ও মানুষের দল ১৯৪৯ সালে তৈরি হওয়া একটি সংগঠন। আওয়ামী লীগকে হুমকি দিয়ে হালুয়া-রুটির লোভে কতগুলো লোক একত্র হওয়ার নাম হলো বিএনপি। এদের মধ্যে কেউ মুসলিম লীগার, কেউ স্বাধীনতাবিরোধী, কেউ চাইনিজপন্থি, কেউ অতি জাসদ, কেউ অতি বাম- এরা মিলে একটা দল করেছে। ২০১৩/১৪-তে অগ্নিসন্ত্রাস ও পেট্রোল সন্ত্রাস করে তাদের ইমেজ এতো সংকটে পড়েছে যে সেখান থেকে আর বের হতে পারছে না। লোকজনে বলে মা দুর্নীতির দায়ে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আর ছেলে খুন এবং দুর্নীতির দায়ে কারাদণ্ডপ্রাপ্ত। ভাড়ায় ড. কামালকে নিয়েছিল এখন ড. কামালও তাদের সঙ্গে নেই। বিএনপির নিজস্ব কোনো নেতৃত্বই নাই।

আগামী ২৮ অক্টোবর বিএনপির কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচির ব্যাপারে তিনি বলেন, এ জাতীয় হুংকারে আওয়ামী লীগ বিচলিত নয়। ২৮ তারিখ কেনো নির্বাচনের আগের দিন পর্যন্ত সাংবিধানিকভাবে শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকবে এবং গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচন হবে। যারা ভোট পাবেন তারা সরকার পরিচালনা করবেন। শেখ হাসিনা সরকার আইনের বাইরে কিচ্ছু করবে না। দেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান। সংবিধানে বলা হয়েছে একটি নির্বাচিত সরকার আরেকটি নির্বাচিত সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করবে এর মাঝখানে আর কোনো সুযোগ নাই এটি আমাদের সর্বোচ্চ আদালতে বলে দেওয়া হয়েছে।

বিএনপির তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি ও বৈদেশিক চাপ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ওনারা মামা বাড়ির আবদার করলে তো আর হবে না। আইনে যেটা নাই নিশ্চয়ই সেটা গ্রহণ করা যাবে না। ১৯৭০ সালে মাওলানা ভাষানীর নেতৃত্বাধীন জোট নির্বাচনে আসে নাই, তাতে কিন্তু মানুষ ভোট দিতে বসে থাকেনি। অসংখ্য দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য বসে আছে বিএনপিরও অনেক নেতারা নির্বাচনে আসবে সময় আসুক দেখবেন। ১৯৭১ সালে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে দেশ যাতে জন্ম নিতে না পারে সেসময় যারা বিরোধিতা করেছে তারা সারা জীবনই করবে এই চাপের কাছে শেখ হাসিনা সরকার আওয়ামী লীগ কখনোই মাথা নত করবে না।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. মো. এমদাদুল হক তালুকদারের সভাপতিত্বে আয়োজিত ওই অনুষ্ঠানে এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. নাহিদ রশীদসহ বিসিএস লাইভস্টক একাডেমির কর্মকর্তারা।