ঢাকা ০২:৫৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বুধবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন

জামায়াত নেতা মতিউর রহমান আকন্দ গ্রেপ্তার

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ১১:০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৫ অক্টোবর ২০২৩
  • / ১৫৯ বার পড়া হয়েছে

রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার নাশকতার মামলায় বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

এদিন সকালে রাজধানীর উত্তরার ১৪ নম্বর সেক্টরের বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও উত্তরা পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক শাহীদুল ইসলাম তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। অন্যদিকে আসামিপক্ষ জামিন চেয়ে আবেদন করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ২০২২ সালের ১১ অক্টোবর উত্তরা পশ্চিম থানাধীন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে জামায়াত শিবিরের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করে জনসাধারনের চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। এ সময় আসামীরা পুলিশের লক্ষ্য করে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। তাদের নিক্ষিপ্ত ইট পাটকেল ও লাঠির আঘাতে পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরে নিজের জানমাল ও সরকারি সম্পদ রক্ষার্থে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ দুই রাউন্ড শটগানের কার্তুজ ফায়ার করলে জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্র শিবিরের নেতা কর্মীরা দৌড়িয়ে পালিয়ে যায়। পরে এ ঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা করা হয়।

বাংলাদেশ ইলামী ছাত্রশিবিরের নিন্দা :
গুরুতর অসুস্থ ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দকে গ্রেফতারে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজিবুর রহমান ও সেক্রেটারি জেনারেল মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, ‘নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজেদের লজ্জাজনক পরিণতির আশঙ্কায় অবৈধ সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণ দানবীয় রূপ ধারণ করেছে। নির্বাচন নিয়ে অশুভ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে জামায়াত নেতাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে।’

শিবির নেতারা আরো বলেন, ‘এই সরকারের ফ্যাসিবাদী হিংস্রতা সকল সীমা অতিক্রম করেছে। অবিলম্বে অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দকে বিনা-শর্তে মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় তার সামান্য ক্ষতি হলে তার দায় সরকার এড়াতে পারবে না।’

তারা অবিলম্বে অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দসহ গ্রেফতার সকল নেতাকর্মীদের মুক্তি দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

রাজধানীতে ছাত্রশিবিরের বিক্ষোভ মিছিল :
মতিউর রহমান আকন্দকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে রাজধানীতে বিক্ষোভ এবং সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির। কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক জাহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে রাজধানীর মুগদায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে নেতাকর্মীরা।

মিছিলোত্তর সমাবেশে কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক বলেন, ‘হাইকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে। যারাই এই সরকারের অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলে তাদেরকেই ন্যক্কারজনভাবে গ্রেফতার করা হচ্ছে। বাংলার মানুষ জেগে উঠেছে। এমন অন্যায় জনগণ আর সহ্য করবে না। আমরা প্রশাসনের উদ্দেশে বলতে চাই, দায়িত্বশীল আচরণ করুন। এখনো সময় আছে জনগণের পক্ষে আসুন। অবিলম্বে অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দকে মুক্তি দিতে হবে। রাজবন্দি আলেম-ওলামাদের মুক্তি দিতে হবে। একই সাথে ছাত্রশিবিরের সাত দফা মেনে নিতে হবে।’

বিক্ষোভ মিছিলে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

বুধবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন

জামায়াত নেতা মতিউর রহমান আকন্দ গ্রেপ্তার

আপডেট সময় ১১:০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৫ অক্টোবর ২০২৩

রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানার নাশকতার মামলায় বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বুধবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

এদিন সকালে রাজধানীর উত্তরার ১৪ নম্বর সেক্টরের বাসা থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরপর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও উত্তরা পশ্চিম থানার উপ-পরিদর্শক শাহীদুল ইসলাম তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। অন্যদিকে আসামিপক্ষ জামিন চেয়ে আবেদন করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ২০২২ সালের ১১ অক্টোবর উত্তরা পশ্চিম থানাধীন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে জামায়াত শিবিরের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করে জনসাধারনের চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করে। এ সময় আসামীরা পুলিশের লক্ষ্য করে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। তাদের নিক্ষিপ্ত ইট পাটকেল ও লাঠির আঘাতে পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরে নিজের জানমাল ও সরকারি সম্পদ রক্ষার্থে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ দুই রাউন্ড শটগানের কার্তুজ ফায়ার করলে জামায়াতে ইসলামী ও ছাত্র শিবিরের নেতা কর্মীরা দৌড়িয়ে পালিয়ে যায়। পরে এ ঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা করা হয়।

বাংলাদেশ ইলামী ছাত্রশিবিরের নিন্দা :
গুরুতর অসুস্থ ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দকে গ্রেফতারে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজিবুর রহমান ও সেক্রেটারি জেনারেল মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, ‘নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজেদের লজ্জাজনক পরিণতির আশঙ্কায় অবৈধ সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণ দানবীয় রূপ ধারণ করেছে। নির্বাচন নিয়ে অশুভ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে জামায়াত নেতাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে।’

শিবির নেতারা আরো বলেন, ‘এই সরকারের ফ্যাসিবাদী হিংস্রতা সকল সীমা অতিক্রম করেছে। অবিলম্বে অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দকে বিনা-শর্তে মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় তার সামান্য ক্ষতি হলে তার দায় সরকার এড়াতে পারবে না।’

তারা অবিলম্বে অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দসহ গ্রেফতার সকল নেতাকর্মীদের মুক্তি দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

রাজধানীতে ছাত্রশিবিরের বিক্ষোভ মিছিল :
মতিউর রহমান আকন্দকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে রাজধানীতে বিক্ষোভ এবং সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির। কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক জাহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে রাজধানীর মুগদায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে নেতাকর্মীরা।

মিছিলোত্তর সমাবেশে কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক বলেন, ‘হাইকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে। যারাই এই সরকারের অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলে তাদেরকেই ন্যক্কারজনভাবে গ্রেফতার করা হচ্ছে। বাংলার মানুষ জেগে উঠেছে। এমন অন্যায় জনগণ আর সহ্য করবে না। আমরা প্রশাসনের উদ্দেশে বলতে চাই, দায়িত্বশীল আচরণ করুন। এখনো সময় আছে জনগণের পক্ষে আসুন। অবিলম্বে অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দকে মুক্তি দিতে হবে। রাজবন্দি আলেম-ওলামাদের মুক্তি দিতে হবে। একই সাথে ছাত্রশিবিরের সাত দফা মেনে নিতে হবে।’

বিক্ষোভ মিছিলে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।