ঢাকা ০২:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মায়ের মৃত্যুর খবরে প্রাণ হারালেন ছেলে

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ০৫:৪৭:৫৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৬০ বার পড়া হয়েছে

মায়ের মৃত্রুর খবরে মারা গেছেন মো. রেজাউল করিম (৪৩) নামে এক ব্যক্তি। বৃহস্পতিবার বিকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার মরিয়মনগর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড পূর্ব সৈয়দবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, ৫ মাস আগে ওমান থেকে এসেছেন রেজাউল। বিদেশ থেকে দেশে আসার মাসখানেক পর মারা যান তার বাবা আবুল হাশেম। বাবার মৃত্যুর শোক কাটিয়ে ওঠার পর পরই চলে গেলেন মা লায়লা বেগম (৭০)। তাই মায়ের মৃত্যুর শোক কাটিয়ে উঠতে না পেরে মারা গেলেন রেজাউলও।

করিমের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বার্ধক্যজনিত রোগে রেজাউলের মাকে বুধবার বিকালে চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন রাত ৯টার দিকে তিনি মারা যান। মোবাইলে মায়ের মৃত্যু হয়েছে এমন খবর পান রেজাউল। তৎক্ষণাৎ তার বুকে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভব হলে তাকে রাঙ্গুনিয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. ইসমাইল বলেন, প্রায় দুই মাস আগে রেজাউলের বাবা মারা গিয়েছিলেন। মায়ের মৃত্যুর খবর শুনে হার্টঅ্যাটাকে চলে যান রেজাউলও। রেজাউলের দুই কন্যাসন্তান রয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে মা ও ছেলের একসঙ্গে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

মায়ের মৃত্যুর খবরে প্রাণ হারালেন ছেলে

আপডেট সময় ০৫:৪৭:৫৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪

মায়ের মৃত্রুর খবরে মারা গেছেন মো. রেজাউল করিম (৪৩) নামে এক ব্যক্তি। বৃহস্পতিবার বিকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার মরিয়মনগর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড পূর্ব সৈয়দবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, ৫ মাস আগে ওমান থেকে এসেছেন রেজাউল। বিদেশ থেকে দেশে আসার মাসখানেক পর মারা যান তার বাবা আবুল হাশেম। বাবার মৃত্যুর শোক কাটিয়ে ওঠার পর পরই চলে গেলেন মা লায়লা বেগম (৭০)। তাই মায়ের মৃত্যুর শোক কাটিয়ে উঠতে না পেরে মারা গেলেন রেজাউলও।

করিমের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বার্ধক্যজনিত রোগে রেজাউলের মাকে বুধবার বিকালে চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন রাত ৯টার দিকে তিনি মারা যান। মোবাইলে মায়ের মৃত্যু হয়েছে এমন খবর পান রেজাউল। তৎক্ষণাৎ তার বুকে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভব হলে তাকে রাঙ্গুনিয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. ইসমাইল বলেন, প্রায় দুই মাস আগে রেজাউলের বাবা মারা গিয়েছিলেন। মায়ের মৃত্যুর খবর শুনে হার্টঅ্যাটাকে চলে যান রেজাউলও। রেজাউলের দুই কন্যাসন্তান রয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে মা ও ছেলের একসঙ্গে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।