ঢাকা ০৯:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, গুলি বর্ষণ, সভাপতিসহ আহত ৪

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ১১:২৬:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ২২১ বার পড়া হয়েছে

নাটোরে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতিসহ দুই পক্ষের ৪ জন আহত হয়েছেন। নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে।

ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিতে যান। এ সময় সেখানে আগে থেকে অবস্থান নেওয়া ছাত্রলীগের অপরপক্ষ তাদের ধাওয়া করে। এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে ও ধাওয়া-পালটাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় চার রাউন্ড গুলি করা হয়।

সংঘর্ষে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফরহাদ বিন আজিজ, রাহুল খান হীরা, রোকনুজ্জামন ও আফজাল হোসেন আহত হন। বিকালে ঘটনার প্রতিবাদে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রলীগের এমপি শিমুল অনুসারী নেতাকর্মীরা।

নাটোর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফরহাদ বিন আজিজ বলেন, শিমুল এমপির সমর্থক পদবিহীন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আমাকে ও সাধারণ সম্পাদককে পার্টি অফিসে ঢুকতে বাধা দেয়। তারা হামলা করে। এতে উভয়পক্ষে ধাওয়া-পালটাধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহীন বলেন, হামলাকারীরা আগে থেকেই পার্টি অফিসে হকিস্টিক লাঠিসোটা নিয়ে অবস্থান করছিল।

গুলি বর্ষণের বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের কাছে একটি কলমও ছিল না। সুতরাং গুলি করার প্রশ্নই ওঠে না।

অন্যদিকে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সোহানুর রহমান সাকিব বলেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফরহাদ বিন আজিজ ও সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহিনের নেতৃত্বে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। ফরহাদের ছোড়া গুলিতে লেদ শ্রমিক জাহাঙ্গীর আহত হয় বলে সাকিব দাবি করেন।

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান বলেন, সেখানে আগে থেকেই পুলিশ মোতায়েন ছিল। সংঘর্ষের সময় ৩ রাউন্ড গুলি ছোড়ার ঘটনা ঘটেছে। গুলির খোসা পুলিশ উদ্ধার করেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, গুলি বর্ষণ, সভাপতিসহ আহত ৪

আপডেট সময় ১১:২৬:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জানুয়ারী ২০২৪

নাটোরে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতিসহ দুই পক্ষের ৪ জন আহত হয়েছেন। নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে।

ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিতে যান। এ সময় সেখানে আগে থেকে অবস্থান নেওয়া ছাত্রলীগের অপরপক্ষ তাদের ধাওয়া করে। এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে ও ধাওয়া-পালটাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় চার রাউন্ড গুলি করা হয়।

সংঘর্ষে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফরহাদ বিন আজিজ, রাহুল খান হীরা, রোকনুজ্জামন ও আফজাল হোসেন আহত হন। বিকালে ঘটনার প্রতিবাদে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রলীগের এমপি শিমুল অনুসারী নেতাকর্মীরা।

নাটোর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফরহাদ বিন আজিজ বলেন, শিমুল এমপির সমর্থক পদবিহীন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আমাকে ও সাধারণ সম্পাদককে পার্টি অফিসে ঢুকতে বাধা দেয়। তারা হামলা করে। এতে উভয়পক্ষে ধাওয়া-পালটাধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহীন বলেন, হামলাকারীরা আগে থেকেই পার্টি অফিসে হকিস্টিক লাঠিসোটা নিয়ে অবস্থান করছিল।

গুলি বর্ষণের বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের কাছে একটি কলমও ছিল না। সুতরাং গুলি করার প্রশ্নই ওঠে না।

অন্যদিকে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সোহানুর রহমান সাকিব বলেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফরহাদ বিন আজিজ ও সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম শাহিনের নেতৃত্বে তাদের ওপর হামলা চালানো হয়। ফরহাদের ছোড়া গুলিতে লেদ শ্রমিক জাহাঙ্গীর আহত হয় বলে সাকিব দাবি করেন।

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান বলেন, সেখানে আগে থেকেই পুলিশ মোতায়েন ছিল। সংঘর্ষের সময় ৩ রাউন্ড গুলি ছোড়ার ঘটনা ঘটেছে। গুলির খোসা পুলিশ উদ্ধার করেছে।