ঢাকা ০২:২৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু মানদণ্ড অনুযায়ী হয়নি: যুক্তরাজ্য

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ০৩:০৩:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ৭৫ বার পড়া হয়েছে
যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, “সব দল নির্বাচনে অংশ নেয়নি। সে কারণে বাংলাদেশের মানুষের ভোট দেওয়ার যথেষ্ট বিকল্প ছিল না।”

গত ৭ জানুয়ারি দেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তবে এটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মানদণ্ড অনুযায়ী হয়নি বলে মন্তব্য করেছে যুক্তরাজ্য।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গতকাল, সোমবার (৮ জানুয়ারি) এক বিবৃতিতে এ কথা বলেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “গণতান্ত্রিক নির্বাচন নির্ভর করে গ্রহণযোগ্য, অবাধ ও সুষ্ঠু প্রতিদ্বন্দ্বিতার ওপর। মানবাধিকার, আইনের শাসন ও যথাযথ প্রক্রিয়ার প্রতি শ্রদ্ধা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার অপরিহার্য উপাদান। নির্বাচনের সময় এসব মানদণ্ড ধারাবাহিকভাবে মেনে চলা হয়নি। ভোটের আগে বিরোধী দলের উল্লেখযোগ্যসংখ্যক নেতা–কর্মীকে গ্রেপ্তার করা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন।”

নির্বাচন সামনে রেখে ও নির্বাচনের প্রচার চলাকালে সহিংসতা ও ভয়ভীতি দেখানোর কর্মকাণ্ডকে বিবৃতিতে নিন্দা জানানো হয়েছে। একইসাথে রাজনীতিতে এ ধরনের কর্মকাণ্ডের কোনো স্থান নেই বলে মন্তব্য করেছে দেশটি।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, “সব দল নির্বাচনে অংশ নেয়নি। সে কারণে বাংলাদেশের মানুষের ভোট দেওয়ার যথেষ্ট বিকল্প ছিল না।”

বিবৃতিতে বলা হয়, “যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশের ঐতিহাসিক ও গভীর বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। একটি টেকসই রাজনৈতিক সমঝোতা ও সক্রিয় নাগরিক সমাজের জন্য অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি হলে দীর্ঘ মেয়াদে দেশের প্রবৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হবে। আমরা বাংলাদেশের সব রাজনৈতিক দলের প্রতি মতভিন্নতা দূর করে জনগণের স্বার্থে সামনে এগিয়ে যাওয়ার অভিন্ন পথ বের করার আহ্বান জানাচ্ছি। এই প্রক্রিয়ায় আমাদের সমর্থন অব্যাহত থাকবে।”

নিউজটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশের নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু মানদণ্ড অনুযায়ী হয়নি: যুক্তরাজ্য

আপডেট সময় ০৩:০৩:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ জানুয়ারী ২০২৪
যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, “সব দল নির্বাচনে অংশ নেয়নি। সে কারণে বাংলাদেশের মানুষের ভোট দেওয়ার যথেষ্ট বিকল্প ছিল না।”

গত ৭ জানুয়ারি দেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তবে এটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মানদণ্ড অনুযায়ী হয়নি বলে মন্তব্য করেছে যুক্তরাজ্য।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গতকাল, সোমবার (৮ জানুয়ারি) এক বিবৃতিতে এ কথা বলেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “গণতান্ত্রিক নির্বাচন নির্ভর করে গ্রহণযোগ্য, অবাধ ও সুষ্ঠু প্রতিদ্বন্দ্বিতার ওপর। মানবাধিকার, আইনের শাসন ও যথাযথ প্রক্রিয়ার প্রতি শ্রদ্ধা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার অপরিহার্য উপাদান। নির্বাচনের সময় এসব মানদণ্ড ধারাবাহিকভাবে মেনে চলা হয়নি। ভোটের আগে বিরোধী দলের উল্লেখযোগ্যসংখ্যক নেতা–কর্মীকে গ্রেপ্তার করা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন।”

নির্বাচন সামনে রেখে ও নির্বাচনের প্রচার চলাকালে সহিংসতা ও ভয়ভীতি দেখানোর কর্মকাণ্ডকে বিবৃতিতে নিন্দা জানানো হয়েছে। একইসাথে রাজনীতিতে এ ধরনের কর্মকাণ্ডের কোনো স্থান নেই বলে মন্তব্য করেছে দেশটি।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, “সব দল নির্বাচনে অংশ নেয়নি। সে কারণে বাংলাদেশের মানুষের ভোট দেওয়ার যথেষ্ট বিকল্প ছিল না।”

বিবৃতিতে বলা হয়, “যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশের ঐতিহাসিক ও গভীর বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। একটি টেকসই রাজনৈতিক সমঝোতা ও সক্রিয় নাগরিক সমাজের জন্য অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি হলে দীর্ঘ মেয়াদে দেশের প্রবৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হবে। আমরা বাংলাদেশের সব রাজনৈতিক দলের প্রতি মতভিন্নতা দূর করে জনগণের স্বার্থে সামনে এগিয়ে যাওয়ার অভিন্ন পথ বের করার আহ্বান জানাচ্ছি। এই প্রক্রিয়ায় আমাদের সমর্থন অব্যাহত থাকবে।”