ঢাকা ০৪:৫২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শৈত্যপ্রবাহ নিয়ে আবহাওয়া অফিসের বার্তা

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ০৬:৪৭:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৪
  • / ১৪৬ বার পড়া হয়েছে

উত্তরের হিমেল হাওয়ায় রাজশাহীতে একদিনের ব্যবধানে কমেছে ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা। সেই সঙ্গে শুক্রবার আকাশে মেঘ আর ঘন কুয়াশায় দুপুর গড়িয়ে গেলেও দেখা মেলেনি সূর্যের। ফলে রাজশাহীতে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। এতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। হাসপাতালে বাড়ছে শীতজনিত রোগে আক্রান্ত রোগীর ভিড়।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক রহিদুল ইসলাম জানান, চলতি জানুয়ারি মাসে রাজশাহী অঞ্চলের ওপর দিয়ে দুটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এখন শৈত্যপ্রবাহের কাছাকাছি অবস্থান করছে তাপমাত্রা। শুক্রবার রাজশাহীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগের দিন বৃহস্পতিবার ছিল ১৩ দশমিক ৩ ডিগ্রি।

এদিকে হাসপাতালে বেড়েছে শীতজনিত রোগে আক্রান্ত রোগীদের ভিড়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (রামেক) শিশু ওয়ার্ডে শীতজনিত রোগে শুক্রবার সকাল থেকে শতাধিক রোগী ভর্তি হয়েছে। আর মেডিসিন ওয়ার্ডেও বৃদ্ধ রোগীর সংখ্যা বেড়েছে।

রামেক হাসপাতালের চিকিৎসক অধ্যাপক খলিলুর রহমান জানান, জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে শিশু ও বয়স্ক মানুষের বের না হওয়াই ভালো। কারণ তীব্র শীতে অসুস্থ হয়ে পড়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। এ কারণে সতর্কভাবে চলাফেরা করতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

শৈত্যপ্রবাহ নিয়ে আবহাওয়া অফিসের বার্তা

আপডেট সময় ০৬:৪৭:৪১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০২৪

উত্তরের হিমেল হাওয়ায় রাজশাহীতে একদিনের ব্যবধানে কমেছে ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা। সেই সঙ্গে শুক্রবার আকাশে মেঘ আর ঘন কুয়াশায় দুপুর গড়িয়ে গেলেও দেখা মেলেনি সূর্যের। ফলে রাজশাহীতে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। এতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। হাসপাতালে বাড়ছে শীতজনিত রোগে আক্রান্ত রোগীর ভিড়।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক রহিদুল ইসলাম জানান, চলতি জানুয়ারি মাসে রাজশাহী অঞ্চলের ওপর দিয়ে দুটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এখন শৈত্যপ্রবাহের কাছাকাছি অবস্থান করছে তাপমাত্রা। শুক্রবার রাজশাহীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগের দিন বৃহস্পতিবার ছিল ১৩ দশমিক ৩ ডিগ্রি।

এদিকে হাসপাতালে বেড়েছে শীতজনিত রোগে আক্রান্ত রোগীদের ভিড়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (রামেক) শিশু ওয়ার্ডে শীতজনিত রোগে শুক্রবার সকাল থেকে শতাধিক রোগী ভর্তি হয়েছে। আর মেডিসিন ওয়ার্ডেও বৃদ্ধ রোগীর সংখ্যা বেড়েছে।

রামেক হাসপাতালের চিকিৎসক অধ্যাপক খলিলুর রহমান জানান, জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে শিশু ও বয়স্ক মানুষের বের না হওয়াই ভালো। কারণ তীব্র শীতে অসুস্থ হয়ে পড়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। এ কারণে সতর্কভাবে চলাফেরা করতে হবে।