ঢাকা ০৮:১২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তারাবি ও সেহরির সময় বিদ্যুতের কোনো সমস্যা হবে না: প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ১১:৩৭:২০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৮৪ বার পড়া হয়েছে

শেখ হাসিনা

তারাবি নামাজ ও সেহরির সময় বিদ্যুতের কোনো সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা।

বুধবার সংসদের বৈঠকে নাটোর-১ আসনের এমপি আবুল কালামের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা জানান। এর আগে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়। খবর বাসসের।

পবিত্র রমজান মাসে তারাবি নামাজ ও সেহরির সময় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেক অর্থ ব্যয় করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হচ্ছে। ভর্তুকি অর্থে তা বিতরণ করা হয়। এখন বিশ্বব্যাপী তেল, এলএনজি, পরিবহনসহ সবকিছুর মূল্য বেড়ে গেছে। তার পরও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রচেষ্টা সরকারের রয়েছে।

তিনি বলেন, এটা ঠিক যে, জ্বালানি তেল ও এলএনজির সংকট আছে। কোনো কোনো কারণে বিদ্যুৎ উৎপাদন হ্রাস পায় বা ব্যাহত হয়। তবে তারাবির নামাজ ও সেহরির সময় বিদ্যুতের সমস্যা হবে না।

এক সময় দেশে ১০-১২ ঘণ্টা বা দিনের পর দিন লোডশেডিং থাকায় মানুষ বিদ্যুৎ না পাওয়ার বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী সবাইকে মনে করিয়ে দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন, এটা আর ঘটবে না।

তিনি বলেন, তবে মাঝে মাঝে (লোডশেডিং) থাকা ভালো। তা না হলে মানুষ অতীতকে ভুলে যাবে। অন্তত উপলব্ধি করবে, কোথায় ছিলাম আর কোথায় আছি।

আওয়ামী লীগের নুরুন্নবী চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ ক্রমাগত এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বৃদ্ধির সঙ্গে মানুষের জীবনমানেরও উন্নয়ন ঘটেছে। তাই অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি জ্বালানি, প্রাকৃতিক গ্যাসের চাহিদাও ক্রমবর্ধমান হারে বাড়ছে। ফলে গ্যাস চাহিদার সরবরাহ সামঞ্জস্যপূর্ণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

নিউজটি শেয়ার করুন

তারাবি ও সেহরির সময় বিদ্যুতের কোনো সমস্যা হবে না: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় ১১:৩৭:২০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

তারাবি নামাজ ও সেহরির সময় বিদ্যুতের কোনো সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা।

বুধবার সংসদের বৈঠকে নাটোর-১ আসনের এমপি আবুল কালামের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা জানান। এর আগে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়। খবর বাসসের।

পবিত্র রমজান মাসে তারাবি নামাজ ও সেহরির সময় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেক অর্থ ব্যয় করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হচ্ছে। ভর্তুকি অর্থে তা বিতরণ করা হয়। এখন বিশ্বব্যাপী তেল, এলএনজি, পরিবহনসহ সবকিছুর মূল্য বেড়ে গেছে। তার পরও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রচেষ্টা সরকারের রয়েছে।

তিনি বলেন, এটা ঠিক যে, জ্বালানি তেল ও এলএনজির সংকট আছে। কোনো কোনো কারণে বিদ্যুৎ উৎপাদন হ্রাস পায় বা ব্যাহত হয়। তবে তারাবির নামাজ ও সেহরির সময় বিদ্যুতের সমস্যা হবে না।

এক সময় দেশে ১০-১২ ঘণ্টা বা দিনের পর দিন লোডশেডিং থাকায় মানুষ বিদ্যুৎ না পাওয়ার বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী সবাইকে মনে করিয়ে দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন, এটা আর ঘটবে না।

তিনি বলেন, তবে মাঝে মাঝে (লোডশেডিং) থাকা ভালো। তা না হলে মানুষ অতীতকে ভুলে যাবে। অন্তত উপলব্ধি করবে, কোথায় ছিলাম আর কোথায় আছি।

আওয়ামী লীগের নুরুন্নবী চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশ ক্রমাগত এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বৃদ্ধির সঙ্গে মানুষের জীবনমানেরও উন্নয়ন ঘটেছে। তাই অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি জ্বালানি, প্রাকৃতিক গ্যাসের চাহিদাও ক্রমবর্ধমান হারে বাড়ছে। ফলে গ্যাস চাহিদার সরবরাহ সামঞ্জস্যপূর্ণ করা সম্ভব হচ্ছে না।