ঢাকা ০৬:১৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোট চুরির অভিযোগে যুবলীগ চেয়ারম্যান পরশের স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

নিউজ ডেস্ক:-
  • আপডেট সময় ০৩:০৪:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ মার্চ ২০২৪
  • / ১২৪ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস্ পরশ এর সাথে স্ত্রী নাহিদ সুলতানা যুথী

সুপ্রিম কোর্টের নির্বাচনের ফলাফল ঘিরে সম্পাদক পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ এর সহধর্মিণী নাহিদ সুলতানা যুথী এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেল থেকে সম্পাদক প্রার্থী মো. রুহুল কুদ্দুস কাজলের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের অ্যাটর্নি সহকারী জেনারেল সাইফুর রহমান সাইফ বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় এই মামলা করেন। শুক্রবার (৮ মার্চ) সুপ্রিম কোর্টের নির্বাচনের ফলাফলকে কেন্দ্র করে এই মামলা করেন তিনি। মামলায় ২০ জনের নাম উল্লেখ করে ৪০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের নির্বাচনের ফলাফলের দিন অ্যাডভোকেট এবং কাজলের নির্দেশে বার সমিতির নীচ তলায় আসামি অ্যাডভোকেট মো. জাকির হোসেন ওরফে মাসুদ অস্ত্রহাতে নিয়ে মামলার বাদী সাইফসহ নির্বাচন সাব-কমিটির অন্যদের গালিগালাজ করেন। এরপর মামলার আসামি অ্যাডভোকেট কাজী বশির আহম্মেদ এবং অ্যাডভোকেট উসমান বাদিকে হত্যার উদ্দেশ্যে রড দিয়ে আঘাত করেন। তখন আসামিরা সাইফকে লাঠি ও চেয়ার দিয়ে এলোপাথাড়ি মারপিট ও আঘাত করেন। এ সময় অ্যাডভোকেট সাইফের সঙ্গে থাকা ব্যারিস্টার জাকারিয়া হাবিবকেও পেটানো হয়। বর্তমানে সাইফুর রহমান সাইফ আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

শাহবাগ থানার ওসি নুর মোহাম্মদের কাছে জানতে চাইলে তিনি এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি।

বাদীর দেওয়া অভিযোগটি মামলা হিসেবে নেওয়া হয়েছে কি না, জানতে চাইলে ওসি বলেন, নেওয়া হয়েছে বা নেওয়া হয়নি-কোনো বিষয়েই মন্তব্য করতে চাচ্ছি না।

সূত্র জানায়, অভিযোগের বাদী সহকারী অ্যার্টনি জেনারেল। আবার অভিযুক্তদের বেশির ভাগই কেন্দ্রীয় যুবলীগের পদধারী নেতা। কেউ আবার আইনজীবী। এমন পরিস্থিতি পুলিশ বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলতে চাচ্ছে না। থানা পুলিশ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশের অপেক্ষায় রয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ভোট চুরির অভিযোগে যুবলীগ চেয়ারম্যান পরশের স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট সময় ০৩:০৪:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৯ মার্চ ২০২৪

সুপ্রিম কোর্টের নির্বাচনের ফলাফল ঘিরে সম্পাদক পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ এর সহধর্মিণী নাহিদ সুলতানা যুথী এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য প্যানেল থেকে সম্পাদক প্রার্থী মো. রুহুল কুদ্দুস কাজলের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের অ্যাটর্নি সহকারী জেনারেল সাইফুর রহমান সাইফ বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় এই মামলা করেন। শুক্রবার (৮ মার্চ) সুপ্রিম কোর্টের নির্বাচনের ফলাফলকে কেন্দ্র করে এই মামলা করেন তিনি। মামলায় ২০ জনের নাম উল্লেখ করে ৪০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের নির্বাচনের ফলাফলের দিন অ্যাডভোকেট এবং কাজলের নির্দেশে বার সমিতির নীচ তলায় আসামি অ্যাডভোকেট মো. জাকির হোসেন ওরফে মাসুদ অস্ত্রহাতে নিয়ে মামলার বাদী সাইফসহ নির্বাচন সাব-কমিটির অন্যদের গালিগালাজ করেন। এরপর মামলার আসামি অ্যাডভোকেট কাজী বশির আহম্মেদ এবং অ্যাডভোকেট উসমান বাদিকে হত্যার উদ্দেশ্যে রড দিয়ে আঘাত করেন। তখন আসামিরা সাইফকে লাঠি ও চেয়ার দিয়ে এলোপাথাড়ি মারপিট ও আঘাত করেন। এ সময় অ্যাডভোকেট সাইফের সঙ্গে থাকা ব্যারিস্টার জাকারিয়া হাবিবকেও পেটানো হয়। বর্তমানে সাইফুর রহমান সাইফ আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

শাহবাগ থানার ওসি নুর মোহাম্মদের কাছে জানতে চাইলে তিনি এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজী হননি।

বাদীর দেওয়া অভিযোগটি মামলা হিসেবে নেওয়া হয়েছে কি না, জানতে চাইলে ওসি বলেন, নেওয়া হয়েছে বা নেওয়া হয়নি-কোনো বিষয়েই মন্তব্য করতে চাচ্ছি না।

সূত্র জানায়, অভিযোগের বাদী সহকারী অ্যার্টনি জেনারেল। আবার অভিযুক্তদের বেশির ভাগই কেন্দ্রীয় যুবলীগের পদধারী নেতা। কেউ আবার আইনজীবী। এমন পরিস্থিতি পুলিশ বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলতে চাচ্ছে না। থানা পুলিশ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশের অপেক্ষায় রয়েছেন।