ঢাকা ০১:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টাকার বিনিময়ে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপার চেষ্টা আ.লীগ নেতার

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১২:৩০:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪
  • / ৮১ বার পড়া হয়েছে

অভিযুক্ত আয়নাল ব্যাপারী

সিরাজগঞ্জে টাকার বিনিময়ে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী এক তরুণী ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে। তবে পুলিশী তৎপড়তায় ওই চেষ্টা ব্যর্থ হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আয়নাল ব্যাপারীকে (৬২) আটক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) ভোরে জেলার এনায়েতপুর মুদিপাড়া এলাকায় ধর্ষণের এ ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনাটি সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আহমেদ মোস্তফা খান বাচ্চু। ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে বিষয়টি সুরাহা করার চেষ্টা করা হয়। খবর পেয়ে দুপুরে পুলিশ নির্যাতিত প্রতিবন্ধী তরুণী ও অভিযুক্ত আয়নাল ব্যাপারীকে থানায় নিয়ে আসে।

নির্যাতিত তরুণীর স্বজন ও স্থানীয়রা জানায়, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ওই তরুণীর তার মা অজেদা খাতুনের সঙ্গে থাকত। আর তার বাবা অন্য জায়গায় বিয়ে করে তাদের রেখে চলে যায়। মঙ্গলবার ভোরে তার মা কাজে গেলে সে বাড়ির বাইরে হাঁটাহাঁটি করছিল। এ সময় স্থানীয় আয়নাল জোরপূর্বক টিনের ঘেরা দেওয়া একটি ফাঁকা স্থানে নিয়ে যায়। এ সময় ধর্ষণকালে তাকে হাতেনাতে আটক করা হয়। এ ঘটনায় সকালেই স্থানীয় মাতব্বর এনায়েতপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আহমেদ মোস্তফা খান বাচ্চু, ছামান তালুকদার ও নুরু হাজীসহ কয়েকজন সালিশ বৈঠকে বসে। পরে টাকার বিনিময়ে বিষয়টি মীমাংসা করে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আহমেদ মোস্তফা খান বাচ্চুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না। যেহেতু বিষয়টি থানা পর্যন্ত গেছে সেখানে কথা বলেন। আপনি ৫০ হাজার টাকায় ধর্ষণের ঘটনা মীমাংসার চেষ্টা করেছেন- এমন প্রশ্ন করলে তিনি ফোন কেটে দেন।

এনায়েতপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ওই তরুণীকে একা পেয়ে আয়নাল ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পেয়েছি। মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ভুক্তভোগীকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আহমেদ মোস্তফা খান বাচ্চুর নেতৃত্বে ৫০ হাজার টাকায় মীমাংসাও করা হয়। খবর পেয়ে আমরা ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আটক করেছি। এ ঘটনায় ভিকটিমের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

টাকার বিনিময়ে ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপার চেষ্টা আ.লীগ নেতার

আপডেট সময় ১২:৩০:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪

সিরাজগঞ্জে টাকার বিনিময়ে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী এক তরুণী ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে। তবে পুলিশী তৎপড়তায় ওই চেষ্টা ব্যর্থ হয়। এ ঘটনায় অভিযুক্ত আয়নাল ব্যাপারীকে (৬২) আটক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) ভোরে জেলার এনায়েতপুর মুদিপাড়া এলাকায় ধর্ষণের এ ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনাটি সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আহমেদ মোস্তফা খান বাচ্চু। ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে বিষয়টি সুরাহা করার চেষ্টা করা হয়। খবর পেয়ে দুপুরে পুলিশ নির্যাতিত প্রতিবন্ধী তরুণী ও অভিযুক্ত আয়নাল ব্যাপারীকে থানায় নিয়ে আসে।

নির্যাতিত তরুণীর স্বজন ও স্থানীয়রা জানায়, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ওই তরুণীর তার মা অজেদা খাতুনের সঙ্গে থাকত। আর তার বাবা অন্য জায়গায় বিয়ে করে তাদের রেখে চলে যায়। মঙ্গলবার ভোরে তার মা কাজে গেলে সে বাড়ির বাইরে হাঁটাহাঁটি করছিল। এ সময় স্থানীয় আয়নাল জোরপূর্বক টিনের ঘেরা দেওয়া একটি ফাঁকা স্থানে নিয়ে যায়। এ সময় ধর্ষণকালে তাকে হাতেনাতে আটক করা হয়। এ ঘটনায় সকালেই স্থানীয় মাতব্বর এনায়েতপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আহমেদ মোস্তফা খান বাচ্চু, ছামান তালুকদার ও নুরু হাজীসহ কয়েকজন সালিশ বৈঠকে বসে। পরে টাকার বিনিময়ে বিষয়টি মীমাংসা করে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আহমেদ মোস্তফা খান বাচ্চুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না। যেহেতু বিষয়টি থানা পর্যন্ত গেছে সেখানে কথা বলেন। আপনি ৫০ হাজার টাকায় ধর্ষণের ঘটনা মীমাংসার চেষ্টা করেছেন- এমন প্রশ্ন করলে তিনি ফোন কেটে দেন।

এনায়েতপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী ওই তরুণীকে একা পেয়ে আয়নাল ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পেয়েছি। মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ভুক্তভোগীকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আহমেদ মোস্তফা খান বাচ্চুর নেতৃত্বে ৫০ হাজার টাকায় মীমাংসাও করা হয়। খবর পেয়ে আমরা ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আটক করেছি। এ ঘটনায় ভিকটিমের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে।