ঢাকা ০৭:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মোস্তাফিজের উইকেট, ধোনির শেষের ঝড়েও চেন্নাইয়ের প্রথম হার

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ০৪:৩০:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪
  • / ১১৩ বার পড়া হয়েছে

প্রথম দুই ম্যাচে সুযোগ থাকার পরও ব্যাটিংয়ে নামার প্রয়োজন মনে করেননি মহেন্দ্র সিং ধোনি। তবে আজ যখন শুরু থেকেই মনে হচ্ছিল ধোনির না নেমে উপায় নেই, তখন কি তিনি আরেকটু ওপরে উঠে আসতে পারতেন না! এবারের আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসের প্রথম হারের পর এমনটা ভাবাই হয়তো স্বাভাবিক।

ধোনি যখন নামলেন, ততক্ষণে ম্যাচ চেন্নাইয়ের হাত থেকে ফসকে গেছে। অবশ্য ম্যাচটা চেন্নাইয়ের হাতে ছিলই বা কখন! বিশাখাপট্টনমে দিল্লি ক্যাপিটালসের দেওয়া ১৯২ রানের লক্ষ্য ছুঁতে নেমে কোনো পর্যায়েই জেতার মতো অবস্থায় যেতে পারেনি চেন্নাই।

ধোনি যখন নামেন, তখন ২৩ বলে দরকার ছিল ৭২ রান। ৪৩ ছুঁই ছুঁই ধোনি তবু চেষ্টা করলেন। ১৬ বলের ইনিংসে ৪টি চার আর ৩টি ছক্কায় দর্শকদের ভরপুর বিনোদন দিয়ে অপরাজিত থাকলেন ৩৭ রানে। তাতে শুধু হারের ব্যবধানটাই কমাতে পারলেন। চেন্নাইকে ২০ রানে হারিয়ে দিল্লি পেল এবারের আসরে প্রথম জয়। এ হারে পয়েন্ট তালিকার দুইয়ে নেমে গেছে চেন্নাই। কলকাতা নাইট রাইডার্স উঠে এসেছে শীর্ষে।

সব মিলিয়ে ২৬তম আর দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে আজ স্বীকৃত টি–টোয়েন্টিতে ৩০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু মোস্তাফিজ বেশ খরুচে ছিলেন; ৪ ওভারে বিলিয়েছেন ৪৭ রান। বল হাতে নিষ্প্রভ ছিলেন দীপক চাহার, রবীন্দ্র জাদেজারাও। তাতে দিল্লি ক্যাপিটালস পেয়ে গিয়েছিল ১৯১ রানের বড় সংগ্রহ।
ফিফটি করেছেন ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও ‘মৃত্যুর দুয়ার’ থেকে ফিরে আসা অধিনায়ক ঋষভ পন্ত। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫২ রানের ইনিংস খেলার পথে নতুন কীর্তি গড়েছেন ওয়ার্নার। আইপিএল ইতিহাসের প্রথম বিদেশি খেলোয়াড় হিসেবে ৬৫০০ রান স্পর্শ করেছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার। ৩১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে আজ চেন্নাইয়ের সেরা বোলার মাতিশা পাতিরানা। মোস্তাফিজের ৩০০তম উইকেট পাওয়ার পুরো কৃতিত্ব পাতিরানাই। তিনিই মোস্তাফিজের বলে এই আইপিএলের সেরা ক্যাচ নিয়ে ওয়ার্নারকে ফিরিয়েছেন।
বড় লক্ষ্য ছুঁতে হলে চেন্নাইকে ভালো শুরু এনে দিতে হতো। আগের দুই ম্যাচে যেটা করেছিলেন রাচিন রবীন্দ্র। তিনি আজ ব্যর্থ হয়েছেন। রান পাননি নতুন অধিনায়ক রুতুরাজ গায়কোয়াড়ও। দুই ওপেনারকেই আউট করেছেন দিল্লির বাঁহাতি পেসার খলিল আহমেদ। ম্যাচসেরাও হয়েছেন খলিল।
চেন্নাইয়ের দুই ওপেনারকেই আউট করেছেন খলিল আহমেদ
চেন্নাইয়ের দুই ওপেনারকেই আউট করেছেন খলিল আহমেদবিসিসিআই

তৃতীয় উইকেটে অভিজ্ঞ অজিঙ্কা রাহানে ও ড্যারিল মিচেল ৬৮ রানের জুটি গড়ে শুরুর বিপর্যয় সামাল দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রয়োজনীয় রানরেট ততক্ষণে ১১ পেরিয়ে যায়।

মাঝের ওভারগুলোতে মুকেশ কুমারের দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে রাহানে, শিবম দুবে, সামির রিজভিরা পেরে ওঠেননি। জাদেজা ধোনির সঙ্গে শেষ পর্যন্ত খেললেও তাঁর ইনিংসটি টি–টোয়েন্টি দাবি মেটাতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত চেন্নাইকে তাই হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে। দল হারলেও ৩ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়ে মোস্তাফিজই উইকেটশিকারিদের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করছেন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর

দিল্লি ক্যাপিটালস: ২০ ওভারে ১৯১/৫

(ওয়ার্নার ৫২, পন্ত ৫১, শ ৪৩; পাতিরানা ৩/৩১, জাদেজা ১/৪৩, মোস্তাফিজ ১/৪৭)

চেন্নাই সুপার কিংস: ২০ ওভারে ১৭১/৬

(রাহানে ৪৫, ধোনি ৩৭*, মিচেল ৩৪; মুকেশ ৩/২১, খলিল ২/২১, অক্ষর ১/২০)

ফল: দিল্লি ক্যাপিটালস ২০ রানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: খলিল আহমেদ

নিউজটি শেয়ার করুন

মোস্তাফিজের উইকেট, ধোনির শেষের ঝড়েও চেন্নাইয়ের প্রথম হার

আপডেট সময় ০৪:৩০:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪

প্রথম দুই ম্যাচে সুযোগ থাকার পরও ব্যাটিংয়ে নামার প্রয়োজন মনে করেননি মহেন্দ্র সিং ধোনি। তবে আজ যখন শুরু থেকেই মনে হচ্ছিল ধোনির না নেমে উপায় নেই, তখন কি তিনি আরেকটু ওপরে উঠে আসতে পারতেন না! এবারের আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসের প্রথম হারের পর এমনটা ভাবাই হয়তো স্বাভাবিক।

ধোনি যখন নামলেন, ততক্ষণে ম্যাচ চেন্নাইয়ের হাত থেকে ফসকে গেছে। অবশ্য ম্যাচটা চেন্নাইয়ের হাতে ছিলই বা কখন! বিশাখাপট্টনমে দিল্লি ক্যাপিটালসের দেওয়া ১৯২ রানের লক্ষ্য ছুঁতে নেমে কোনো পর্যায়েই জেতার মতো অবস্থায় যেতে পারেনি চেন্নাই।

ধোনি যখন নামেন, তখন ২৩ বলে দরকার ছিল ৭২ রান। ৪৩ ছুঁই ছুঁই ধোনি তবু চেষ্টা করলেন। ১৬ বলের ইনিংসে ৪টি চার আর ৩টি ছক্কায় দর্শকদের ভরপুর বিনোদন দিয়ে অপরাজিত থাকলেন ৩৭ রানে। তাতে শুধু হারের ব্যবধানটাই কমাতে পারলেন। চেন্নাইকে ২০ রানে হারিয়ে দিল্লি পেল এবারের আসরে প্রথম জয়। এ হারে পয়েন্ট তালিকার দুইয়ে নেমে গেছে চেন্নাই। কলকাতা নাইট রাইডার্স উঠে এসেছে শীর্ষে।

সব মিলিয়ে ২৬তম আর দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে আজ স্বীকৃত টি–টোয়েন্টিতে ৩০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু মোস্তাফিজ বেশ খরুচে ছিলেন; ৪ ওভারে বিলিয়েছেন ৪৭ রান। বল হাতে নিষ্প্রভ ছিলেন দীপক চাহার, রবীন্দ্র জাদেজারাও। তাতে দিল্লি ক্যাপিটালস পেয়ে গিয়েছিল ১৯১ রানের বড় সংগ্রহ।
ফিফটি করেছেন ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ও ‘মৃত্যুর দুয়ার’ থেকে ফিরে আসা অধিনায়ক ঋষভ পন্ত। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৫২ রানের ইনিংস খেলার পথে নতুন কীর্তি গড়েছেন ওয়ার্নার। আইপিএল ইতিহাসের প্রথম বিদেশি খেলোয়াড় হিসেবে ৬৫০০ রান স্পর্শ করেছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার। ৩১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে আজ চেন্নাইয়ের সেরা বোলার মাতিশা পাতিরানা। মোস্তাফিজের ৩০০তম উইকেট পাওয়ার পুরো কৃতিত্ব পাতিরানাই। তিনিই মোস্তাফিজের বলে এই আইপিএলের সেরা ক্যাচ নিয়ে ওয়ার্নারকে ফিরিয়েছেন।
বড় লক্ষ্য ছুঁতে হলে চেন্নাইকে ভালো শুরু এনে দিতে হতো। আগের দুই ম্যাচে যেটা করেছিলেন রাচিন রবীন্দ্র। তিনি আজ ব্যর্থ হয়েছেন। রান পাননি নতুন অধিনায়ক রুতুরাজ গায়কোয়াড়ও। দুই ওপেনারকেই আউট করেছেন দিল্লির বাঁহাতি পেসার খলিল আহমেদ। ম্যাচসেরাও হয়েছেন খলিল।
চেন্নাইয়ের দুই ওপেনারকেই আউট করেছেন খলিল আহমেদ
চেন্নাইয়ের দুই ওপেনারকেই আউট করেছেন খলিল আহমেদবিসিসিআই

তৃতীয় উইকেটে অভিজ্ঞ অজিঙ্কা রাহানে ও ড্যারিল মিচেল ৬৮ রানের জুটি গড়ে শুরুর বিপর্যয় সামাল দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রয়োজনীয় রানরেট ততক্ষণে ১১ পেরিয়ে যায়।

মাঝের ওভারগুলোতে মুকেশ কুমারের দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে রাহানে, শিবম দুবে, সামির রিজভিরা পেরে ওঠেননি। জাদেজা ধোনির সঙ্গে শেষ পর্যন্ত খেললেও তাঁর ইনিংসটি টি–টোয়েন্টি দাবি মেটাতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত চেন্নাইকে তাই হার নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছে। দল হারলেও ৩ ম্যাচে ৭ উইকেট নিয়ে মোস্তাফিজই উইকেটশিকারিদের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করছেন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর

দিল্লি ক্যাপিটালস: ২০ ওভারে ১৯১/৫

(ওয়ার্নার ৫২, পন্ত ৫১, শ ৪৩; পাতিরানা ৩/৩১, জাদেজা ১/৪৩, মোস্তাফিজ ১/৪৭)

চেন্নাই সুপার কিংস: ২০ ওভারে ১৭১/৬

(রাহানে ৪৫, ধোনি ৩৭*, মিচেল ৩৪; মুকেশ ৩/২১, খলিল ২/২১, অক্ষর ১/২০)

ফল: দিল্লি ক্যাপিটালস ২০ রানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: খলিল আহমেদ