ঢাকা ০২:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিসিএস পরীক্ষা দিতে না পেরে রাস্তায় গড়াগড়ি

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১০:৫৮:২২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৮৯ বার পড়া হয়েছে

বিসিএস পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা সকাল ১০টায়। সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে কেন্দ্রে এসে এক শিক্ষার্থী ভেতরে ঢুকতে পারেননি। পুলিশের বাধা অমান্য করে গেট টপকে ভেতরে ঢুকলেও পুলিশ তাঁকে পরীক্ষায় বসতে দেয়নি। বের করে দিয়েছে। এটি ছিল ওই শিক্ষার্থীর জীবনের শেষ বিসিএস। তিনি রাস্তার ওপরে মাথা ঠুকতে থাকেন, রোদের মধ্যে গড়াগড়ি দিতে থাকেন। তবু তাঁকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। নিয়ম অনুযায়ী সকাল সাড়ে ৯টার মধ্যে তাঁর কেন্দ্রে ঢোকার কথা ছিল। ১০ মিনিট দেরি হওয়ার কারণে তিনি এত কিছু করেও পরীক্ষায় বসতে পারেননি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ৯টা ৩০ মিনিটে কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কেন্দ্রের বাইরের গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরীক্ষার্থী ফাহাদ ফয়সাল সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে কেন্দ্রে এলে তাঁকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। তিনি এ সময় গেটের ওপর দিয়ে উঠে কেন্দ্রের ভেতরে নামেন। তখন ভেতরে কর্তব্যরত পুলিশ তাঁর দুই হাত পিঠমোড়া করে ধরেন। শত চেষ্টাতেও তাঁকে পরীক্ষা হলে বসতে না দিয়ে বের করে দেওয়া হয়। বাইরে বের হয়ে ফাহাদ আবার ঢোকার চেষ্টা করেন। এবার গেটের দরজা ফাঁক করে খানিকটা ভেতরে ঢোকেন। পুলিশ তাঁকে ধরে বের করে আনেন। ব্যর্থ হয়ে তিনি মাটিতে মাথা ঠুকতে থাকেন। একপর্যায়ে রোদের মধ্যে রাস্তায় গড়াগড়ি দিতে থাকেন, আর তাঁর জীবনের শেষ পরীক্ষা বলে আহাজারি করতে থাকেন। শেষ পর্যন্ত তিনি পরীক্ষার কেন্দ্রে ঢুকতে পারেননি।

পিএসসির রাজশাহী কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী মহানগরের ২৯টি কেন্দ্রে বিভাগের আট জেলা থেকে এবার পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩১ হাজার ৯৪৭ জন। এর মধ্যে পরীক্ষা দিয়েছেন ২৪ হাজার ১১৮ জন। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুধু শাহমখদুম কলেজ কেন্দ্রে এক পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। অন্য কোনো কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

শিক্ষার্থীর ভেতরে ঢুকতে না পারার ব্যাপারে জানতে চাইলে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) রাজশাহী আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপপরিচালক নূর আহমেদ মাছুম বলেন, ‘কয়েক দিন আগে আমাদের চেয়ারম্যান মহোদয় সব কেন্দ্রসচিবদের সঙ্গে ভার্চ্যুয়াল মিটিং করেছিলেন। তিনি নির্দেশ দিয়েছিলেন, পরীক্ষা শুরুর আধা ঘণ্টা আগে কেউ কেন্দ্রে প্রবেশ না করলে তাঁকে যেন আর ঢুকতে দেওয়া না হয়। এই নির্দেশনাই বাস্তবায়ন করা হয়েছে। ওই পরীক্ষার্থীর আরও আগে আসা উচিত ছিল। তাহলে তিনি পরীক্ষা দিতে পারতেন।’

নিউজটি শেয়ার করুন

বিসিএস পরীক্ষা দিতে না পেরে রাস্তায় গড়াগড়ি

আপডেট সময় ১০:৫৮:২২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০২৪

বিসিএস পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা সকাল ১০টায়। সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে কেন্দ্রে এসে এক শিক্ষার্থী ভেতরে ঢুকতে পারেননি। পুলিশের বাধা অমান্য করে গেট টপকে ভেতরে ঢুকলেও পুলিশ তাঁকে পরীক্ষায় বসতে দেয়নি। বের করে দিয়েছে। এটি ছিল ওই শিক্ষার্থীর জীবনের শেষ বিসিএস। তিনি রাস্তার ওপরে মাথা ঠুকতে থাকেন, রোদের মধ্যে গড়াগড়ি দিতে থাকেন। তবু তাঁকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। নিয়ম অনুযায়ী সকাল সাড়ে ৯টার মধ্যে তাঁর কেন্দ্রে ঢোকার কথা ছিল। ১০ মিনিট দেরি হওয়ার কারণে তিনি এত কিছু করেও পরীক্ষায় বসতে পারেননি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ৯টা ৩০ মিনিটে কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কেন্দ্রের বাইরের গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরীক্ষার্থী ফাহাদ ফয়সাল সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে কেন্দ্রে এলে তাঁকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। তিনি এ সময় গেটের ওপর দিয়ে উঠে কেন্দ্রের ভেতরে নামেন। তখন ভেতরে কর্তব্যরত পুলিশ তাঁর দুই হাত পিঠমোড়া করে ধরেন। শত চেষ্টাতেও তাঁকে পরীক্ষা হলে বসতে না দিয়ে বের করে দেওয়া হয়। বাইরে বের হয়ে ফাহাদ আবার ঢোকার চেষ্টা করেন। এবার গেটের দরজা ফাঁক করে খানিকটা ভেতরে ঢোকেন। পুলিশ তাঁকে ধরে বের করে আনেন। ব্যর্থ হয়ে তিনি মাটিতে মাথা ঠুকতে থাকেন। একপর্যায়ে রোদের মধ্যে রাস্তায় গড়াগড়ি দিতে থাকেন, আর তাঁর জীবনের শেষ পরীক্ষা বলে আহাজারি করতে থাকেন। শেষ পর্যন্ত তিনি পরীক্ষার কেন্দ্রে ঢুকতে পারেননি।

পিএসসির রাজশাহী কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী মহানগরের ২৯টি কেন্দ্রে বিভাগের আট জেলা থেকে এবার পরীক্ষার্থী ছিলেন ৩১ হাজার ৯৪৭ জন। এর মধ্যে পরীক্ষা দিয়েছেন ২৪ হাজার ১১৮ জন। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুধু শাহমখদুম কলেজ কেন্দ্রে এক পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে। অন্য কোনো কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

শিক্ষার্থীর ভেতরে ঢুকতে না পারার ব্যাপারে জানতে চাইলে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) রাজশাহী আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপপরিচালক নূর আহমেদ মাছুম বলেন, ‘কয়েক দিন আগে আমাদের চেয়ারম্যান মহোদয় সব কেন্দ্রসচিবদের সঙ্গে ভার্চ্যুয়াল মিটিং করেছিলেন। তিনি নির্দেশ দিয়েছিলেন, পরীক্ষা শুরুর আধা ঘণ্টা আগে কেউ কেন্দ্রে প্রবেশ না করলে তাঁকে যেন আর ঢুকতে দেওয়া না হয়। এই নির্দেশনাই বাস্তবায়ন করা হয়েছে। ওই পরীক্ষার্থীর আরও আগে আসা উচিত ছিল। তাহলে তিনি পরীক্ষা দিতে পারতেন।’