ঢাকা ০৭:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চান্দিনায় গৃহবধূর শ্লীলতাহানি, পিটুনিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদ :
  • আপডেট সময় ১০:০০:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪
  • / ৬০ বার পড়া হয়েছে

কুমিল্লায় গৃহবধূর শ্লীলতাহানি চেষ্টার অভিযোগে তানভীর আহমেদ ভূঁইয়া (৩২) নামের এক যুবলীগ নেতাকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (৪ জুন) রাতে উপজেলার বাড়েরা ইউনিয়নের গড়ামারা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরদিন বুধবার (৫ জুন) সকালে ওই গ্রামের একটি বাড়ি থেকে তানভীরের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই গ্রামের সেলিম মিয়া (৩৫) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত তানভীর একই ইউনিয়নের গনিপুর গ্রামের বাবুল ভূঁইয়ার ছেলে। তিনি বাড়েরা ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি। তার বিরুদ্ধে চান্দিনা ও তিতাস থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আটক সেলিম মিয়ার স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা রাবেয়া বেগম জানান, মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে তানভীর তার ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় তার স্বামীর সঙ্গে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। তার স্বামী কয়েকটি পিটুনি দেওয়ার পর তানভীর অচেতন হয়ে পড়ে যায়। একপর্যায়ে তার মৃত্যু হয়।

নিহত তানভীরের মা নিলুফা বেগম জানান, তানভীরকে পরিকল্পিতভাবে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

চান্দিনা থানার ওসি আহাম্মদ সনজুর মোরশেদ জানান, নিহত তানভীরের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন ও পায়ে ধারালো অস্ত্রের কাটা চিহ্ন রয়েছে। তবে কি কারণে এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে তা তদন্তের পর বলা যাবে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সেলিম মিয়া নামের একজনকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, পূর্বশত্রুতার জেরে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় নিহতের মা নিলুফা বেগম বাদী হয়ে অভিযোগ করেছেন। নিহতের বিরুদ্ধে চান্দিনা ও তিতাস থানায় অস্ত্র ও ধর্ষণসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

চান্দিনায় গৃহবধূর শ্লীলতাহানি, পিটুনিতে যুবলীগ নেতার মৃত্যু

আপডেট সময় ১০:০০:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪

কুমিল্লায় গৃহবধূর শ্লীলতাহানি চেষ্টার অভিযোগে তানভীর আহমেদ ভূঁইয়া (৩২) নামের এক যুবলীগ নেতাকে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (৪ জুন) রাতে উপজেলার বাড়েরা ইউনিয়নের গড়ামারা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরদিন বুধবার (৫ জুন) সকালে ওই গ্রামের একটি বাড়ি থেকে তানভীরের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই গ্রামের সেলিম মিয়া (৩৫) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত তানভীর একই ইউনিয়নের গনিপুর গ্রামের বাবুল ভূঁইয়ার ছেলে। তিনি বাড়েরা ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি। তার বিরুদ্ধে চান্দিনা ও তিতাস থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আটক সেলিম মিয়ার স্ত্রী অন্তঃসত্ত্বা রাবেয়া বেগম জানান, মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে তানভীর তার ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় তার স্বামীর সঙ্গে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। তার স্বামী কয়েকটি পিটুনি দেওয়ার পর তানভীর অচেতন হয়ে পড়ে যায়। একপর্যায়ে তার মৃত্যু হয়।

নিহত তানভীরের মা নিলুফা বেগম জানান, তানভীরকে পরিকল্পিতভাবে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

চান্দিনা থানার ওসি আহাম্মদ সনজুর মোরশেদ জানান, নিহত তানভীরের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন ও পায়ে ধারালো অস্ত্রের কাটা চিহ্ন রয়েছে। তবে কি কারণে এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে তা তদন্তের পর বলা যাবে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সেলিম মিয়া নামের একজনকে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, পূর্বশত্রুতার জেরে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় নিহতের মা নিলুফা বেগম বাদী হয়ে অভিযোগ করেছেন। নিহতের বিরুদ্ধে চান্দিনা ও তিতাস থানায় অস্ত্র ও ধর্ষণসহ একাধিক মামলা রয়েছে।