প্রচ্ছদ

মহামারি কাটিয়ে ওঠার আশাবাদ দিয়ে টিকার অনিশ্চয়তা দিল ভারত

2021/06/21/_post_thumb-2021_06_21_07_35_08.jpg

বাংলাদেশকে টিকা দেওয়ার সময় অনিশ্চিত জানিয়ে ভারতের বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেন, ভারতে করোনা পরিস্থিতি এখনও করুণ তাই বাংলাদেশকে টিকা দেওয়ার সময় নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছেনা । আমরা টিকা উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যাচ্ছি, এ জন্য আরও কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে। সে সময়েই এ বিষয়ে বিবেচনা করা ভালো। এ বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে এখনও আলোচনা চলছে।

অন্যদিকে যখনিই এই অনিশ্চয়েতার কথা জানাচ্ছেন ঠিক সে মুহুর্তেই আবার মহামারি কাটিয়ে ওঠার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যাক্ত করেছেন নরেন্দ্র মোদি।

তিনি বলেছেন, আমি এখনো আশাবাদী যে মানবতায় সাহায্যে এই মহামারি শিগশিরই কাটিয়ে উঠা যাবে।

ভারতের এরকম দ্বিমুখিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। তারা বলছেন, ভারত অসলে বাংলাদেশের বন্ধু নয়। তারা চায়না বাংলাদেশ ভালো থাকুক। আসলে ভারতের বন্ধু আওয়ামীলীগ। স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশকে সহায়তা করেছিল ভারত। তবে তাদের এই সহায়তা নিয়েও প্রশ্ন আছে। বাংলাদেশের মানুষের মুক্তির জন্য মুক্তিযুদ্ধে ভারত সহায়তা করেনি। তাদের সহায়তার পেছনে দুইটি কারণ ছিল। প্রথমত; পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশকে আলাদা করে পাকিস্তানকে দুর্বল করা। দ্বিতীয়ত; বাংলাদেশকে পাকিস্তান থেকে আলাদা করে এটাকে গ্রাস করা। বিগত ৫০ বছর ধরে ভারত যা করে আসছে। মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ পাকিস্তানের কবল থেকে মুক্ত হয়ে ভারতের আগ্রাসনের শিকার হয়েছে। তাই বলায় যায় বাংলাদেশ এখন পুরোপুরি ভারতের নিয়ন্ত্রণে।

মন্তব্য